ঢাকা, বুধবার, ডিসেম্বর ১২, ২০১৮, অগ্রহায়ণ ২৭, ১৪২৫ ০২:৪৬ এএম
  
হোম এনার্জি বিডি এনার্জি ওয়ার্ল্ড গ্রীণ এনার্জি মতামত সাক্ষাৎকার পরিবেশ বিজনেস অন্যান্য আর্কাইভ
সর্বশেষ >
English Version
   
অন্য শীর্ষ খবর
সামিট পাওয়ারের ৩০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা
সামিট পাওয়ার লিমিটেড শেয়ার হোল্ডারদের জন্য ৩০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ অনুমোদন করেছে। রোববার রাজধানীর খামারবাড়ীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত কোম্পানীর ২১তম বার্ষিক সাধারণ সভায় সমাপ্তকৃত হিসাব বছরের (৩০শে জুন ২০১৮ পর্যন্ত ) জন্য এ লভ্যাংশ অনুমোদন করা হয় বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি ২০০৫ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্তির পর থেকেই ধারাবাহিকভাবে লভ্যাংশ ঘোষণা করে আসছে। সামিট পাওয়ার লিমিটেডের চেয়ারম্যান মুহাম্মদ আজিজ খানের সভাপতিত্বে এ সভায় উপস্থিত ছিলেন ভাইস চেয়ারম্যান মো. লতিফ খান, পরিচালক আঞ্জুমান আজিজ খান, পরিচালক জাফর উম্মিদ খান, পরিচালক মো. ফরিদ খান, পরিচালক ফয়সাল করিম খান, পরিচালক আজিজা আজিজ খান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক লেঃ জেঃ (অবঃ) ইঞ্জিঃ আবদুল ওয়াদুদ, পরিচালক ফারুক আহমেদ সিদ্দীকী, পরিচালক হেলাল উদ্দীন আহমেদ, পরিচালক আরিফ আল ইসলাম, পরিচালক মুস্তাফিজুর রহমান খান এবং ফাইন্যান্সিয়াল কন্ট্রোলার এন্ড কোম্পানী সেক্রেটারি  স্বপন কুমার পালসহ অন্যান্য উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। সামিট পাওয়ার লিমিটেড দেশের বেসরকারি খাতে বিদ্যুৎ উৎপাদনে শীর্ষস্থানীয় ট্রিপল এ রেটিং প্রাপ্ত এবং পুঁজিবাজারে  তালিকাভুক্ত একটি প্রতিষ্ঠান। বর্তমানে সামিট গ্রুপ মোট ১,৯৪১ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রীডে সরবরাহ করছে। সামিট পাওয়ার সম্প্রতি গাজীপুরের কড্ডায় মোট ৪৪৯ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন দুটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন করছে। সামিট গ্রুপ বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক ২০১৩ সাল থেকে টানা পাঁচবার সেরা বিদ্যুৎ উৎপাদন প্রকল্পের স্বীকৃতি পেয়ে আসছে।
‘রাজশাহী সিটি করপোরেশনে বর্জ্য থেকে ডিজেল ও বায়োগ্যাস তৈরি হবে’
ডিসেম্বর ০৮, ২০১৮ শনিবার ০৬:৩৩ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
বর্জ্য থেকে ডিজেল, জৈব সার ও বায়োগ্যাসউৎপাদনে রাজশাহী সিটি করপোরেশন ও যুক্তরাষ্ট্রের ওয়েস্ট টেকনোলজি এলএলসি কোম্পানির মধ্যে এক সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। গত ৫ ডিসেম্বর নগরভবনে এ সমঝোতা স্মারকে সই করেন সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন ও ওয়েস্ট টেকনোলজি এলএলসি লিমিটেডের চেয়ারম্যান ড. মঈন উদ্দিন সরকার। পাইলট প্রকল্পটির মেয়াদ ধরা হয়েছে আড়াই বছর। চুক্তি অনুযায়ী, সিটি কপোরেশন ভূমি সুবিধা প্রদান ও বর্জ্য-আবর্জনা সরবরাহ করবে। আর এলএলসি সব ধরনের আর্থিক ব্যয়ভার বহন করে প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে। এলএলসির চেয়ারম্যান মঈন উদ্দিন সরকার বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কানাডিয়ান নাগরিক। অনুষ্ঠানে সিটি মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, ‘প্রস্তাবটি পাওয়ার পর বিশ্বাস করাটা কঠিন ছিল যে বর্জ্য থেকে কিভাবে ডিজেল তৈরি হবে। তবে আলাপ-আলোচনায় বিস্তারিত জানার পর আশা করছি ড. মঈন উদ্দিনের প্রজেক্টেটি সফল হলে এটি শুধু রাজশাহী নয়, পৃথিবীর মধ্যে একটা দৃষ্টান্ত স্থাপন হবে।’ খায়রুজ্জামান আরো বলেন, ‘পলিথিন পরিবেশের ভারসাম্যের জন্য ক্ষতিকর। প্রজেক্টটি সফল হলে একদিকে বর্জ্য-আবর্জনা মুক্ত নগরী হবে, অন্যদিকে বিভিন্ন প্রোডাক্ট পাবো। প্রজেক্টটি সফল করতে আমার পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতা কোম্পানিকে করবো।’ ড. মঈন উদ্দিন সরকার বলেন, ‘এই প্রজেক্টটি শুধু বাংলাদেশ বা এশিয়ার মধ্যে নয়, পৃথিবীর মধ্যে পাইওনিয়ার হবে। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ থেকে এটি দেখতে মানুষ আসবে।’ সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র-১, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি সরিফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ওয়েস্ট টেকনোলজি লিমিটেড কোম্পানির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. আঞ্জুমান শেলী, সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ্ মোমিন প্রমুখ।
Category: নবায়নযোগ্য
বাপেক্সর নতুন ব্যবস্থাপনা পরিচালক মীর হান্নান
নভেম্বর ৩০, ২০১৮ শুক্রবার ০৩:৪৯ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম এক্সপ্লোরেশন অ্যান্ড প্রোডাকশন কোম্পানি লিমিটেড (বাপেক্স) এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক পদে মীর মো. আব্দুল হান্নান গত ২৭ নভেম্বর যোগদান করেছেন। এর আগে তিনি পশ্চিমাঞ্চল গ্যাস কোম্পানী লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার (মার্কেটিং) হিসেবে কর্মরত ছিলেন। মীর হান্নানের জম্মস্থান সিরাজগঞ্জ।
Category: অন্যান্য
বাখরাবাদ গ্যাস কোম্পানীর ২১৭ কোটি টাকা মুনাফা
নভেম্বর ২৮, ২০১৮ বুধবার ১২:০০ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিমিটেডের (বিজিডিসিএল) ৩৮তম বার্ষিক সাধারণ সভা সম্প্রতি রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) ও বিজিডিসিএলের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান পারভীন আকতার। সভায় শেয়ারহোল্ডারগণকে অবহিত করা হয় যে, আলোচ্য অর্থ-বছরে ৩,৫৭১.৫১ মিলিয়ন ঘনমিটার গ্যাস বিক্রয়ের বিপরীতে বিজিডিসিএল-এর অন্যান্য পরিচালন আয়সহ মোট রাজস্ব আয় হয়েছে ২,২০৭.৩০ কোটি টাকা আলোচ্য অর্থ-বছরে কোম্পানী করপূর্ব মুনাফা অর্জন করেছে ২১৭.৮৬ কোটি টাকা এবং ডিএসএল, সিডিভ্যাট, আয়কর ও লংভ্যাশ বাবদ মোট ১৬৪.৩৪ কোটি টাকা সরকারি কোষাগারে জমা প্রদান করেছে বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।
Category: গ্যাস
‘ফারইস্ট স্পিনিং ইন্ডাস্ট্রিজের ছাদে ১ মেগাওয়াটের সোলার প্লান্ট চালু’
নভেম্বর ২৭, ২০১৮ মঙ্গলবার ০৯:৩৮ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
হবিগঞ্জের মাধবপুরে ফারইস্ট স্পিনিং ইন্ডাস্ট্রিজের ছাদে এক দশমিক এক মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন  সোলার প্রকল্প সোমবার উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানিবিষয়ক উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী । ২০২০ সালের মধ্যে দেশে মোট উৎপাদিত বিদ্যুতের ২০ শতাংশ আসবে নবায়নযোগ্য জ্বালানি থেকে তারই অংশ হিসেবে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়েছে। এ প্রকল্পের ফলে স্পিনিং মিলটিতে গ্রিডভিত্তিক বিদ্যুৎ কম খরচ করার মাধ্যমে আর্থিক খরচও কম হবে। উদ্বৃত্ত বিদ্যুৎ নেট-মিটারিংয়ের মাধ্যমে সরকারের কাছে বিক্রি করা যাবে। আট কোটি ৯০ লাখ টাকার এ প্রকল্প ব্যয়ের ৮০ শতাংশ অর্থায়ন করেছে ইডকল। এছাড়া প্রকল্প ব্যয়ের বাকি ২০ শতাংশ অর্থ ১০ বছরে ছয় শতাংশ সুদে ফারইস্ট স্পিনিং ইন্ডাস্ট্রিজের পরিশোধ করতে হবে। মূলত ছাদভিত্তিক সৌর বিদ্যুতের দাম গ্রিডভিত্তিক বিদ্যুতের চেয়ে কম। ভবিষ্যতে এ বিদ্যুতের দাম আরও সাশ্রয়ী হবে। এ ধরনের প্রকল্পে অর্থায়নে নবায়নযোগ্য জ্বালানির মাধ্যমে দেশ লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছাবে। ইডকলের প্রধান নির্বাহী ও নির্বাহী পরিচালক মাহমুদ মালিক বলেন, ২০২০ সাল নাগাদ বাংলাদেশ নবায়নযোগ্য জ্বালানির মাধ্যমে দুই হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। ছাদভিত্তিক সামাজিক জ্বালানির (সোশ্যাল এনার্জি) মাধ্যমে বাংলাদেশের চার হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের ক্ষমতা রয়েছে। দেশে চার হাজার মেগাওয়াট সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদনের সম্ভাবনা রয়েছে। ২০২১ সাল নাগাদ ইডকল ৩০০ মেগাওয়াট সৌর বিদ্যুতে অর্থায়নের লক্ষ্যমাত্রা স্থির করেছে। অনুষ্ঠানে টেকসই ও নবায়নযোগ্য জ্বালানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান ও অতিরিক্ত সচিব মো. হেলালউদ্দিন, ফারইস্ট স্পিনিং ইন্ডাস্ট্রিজের চেয়ারম্যান আসিফ মঈন, ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির শিক্ষক শাহরিয়ার আহমেদ চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।    
Category: নবায়নযোগ্য
২০১৯ সালে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দাম দাঁড়াবে ব্যারেলপ্রতি ৭৫ ডলার
নভেম্বর ২৬, ২০১৮ সোমবার ০৫:০১ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের উত্তোলন ও সরবরাহ নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দেওয়ায় আন্তর্জাতিক বাজারে পণ্যটির দাম ধারাবাহিকভাবে কমতে শুরু করেছে। সব মিলিয়ে জ্বালানি তেলের বাজারে বিদ্যমান মন্দাভাব দীর্ঘমেয়াদে বজায় থাকতে পারে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। এর জের ধরে একের পর এক বিশ্লেষণী প্রতিষ্ঠান চলতি ও আগামী বছরের জন্য অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের গড় দামের প্রাক্কলন কমিয়ে দিয়েছে। এ তালিকায় সর্বশেষ যুক্ত হয়েছে এসঅ্যান্ডপি গ্লোবাল প্লাটস। প্রতিষ্ঠানটি ২০১৯ সালে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের গড় দামের প্রাক্কলন ব্যারেলপ্রতি ৭৫ ডলার ৫০ সেন্টে নামিয়ে এনেছে। লন্ডনভিত্তিক এসঅ্যান্ডপি গ্লোবাল প্লাটসের সাম্প্রতিক জরিপভিত্তিক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চলতি বছরের শেষ দিকে এসে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের বাজারে বড় ধরনের অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। ইরানের ওপর নতুন করে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হওয়া, সৌদি আরব ও রাশিয়াসহ বেশির ভাগ দেশ জ্বালানি তেলের উত্তোলন নতুন করে বাড়িয়ে দেয়া, মার্কিন উত্তোলন খাতের চাঙ্গাভাব, চীন-মার্কিন বাণিজ্যযুদ্ধের জের ধরে বৈশ্বিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির গতি তুলনামূলক শ্লথ হয়ে জ্বালানি তেলের চাহিদা বৃদ্ধিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়াসহ বিভিন্ন কারণে জ্বালানি পণ্যটির বাজারে তৈরি হওয়া অনিশ্চয়তা সহসাই কাটছে না। এ পরিস্থিতির প্রভাব পড়ছে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের বাজারে। চলতি বছরের মাঝামাঝি সময়ে এক প্রতিবেদনে এসঅ্যান্ডপি গ্লোবাল প্লাটস জানায়, ২০১৯ সালে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের গড় দাম দাঁড়াতে পারে ব্যারেলপ্রতি ৭৮ ডলার ৫১ সেন্টে। সাম্প্রতিক জরিপভিত্তিক প্রতিবেদনে জ্বালানি পণ্যটির গড় দাম কমিয়ে ব্যারেলপ্রতি ৭৫ ডলার ৫০ সেন্ট প্রাক্কলন করা হয়েছে। সে হিসাবে, সর্বশেষ প্রাক্কলনে জ্বালানি তেলের গড় দাম ব্যারেলে ৩ ডলার ১ সেন্ট কমিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এসঅ্যান্ডপি গ্লোবাল প্লাটসের সাম্প্রতিক জরিপে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ১১ বিনিয়োগ ব্যাংক ও অয়েল ব্রোকারের প্রতিনিধিরা অংশ নিয়েছে। এদিকে চলতি বছর প্রতি ব্যারেল ব্রেন্ট ক্রুডের গড় দাম ৭৩ ডলার ৯১ সেন্টে স্থির হতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে এসঅ্যান্ডপি গ্লোবাল প্লাটস। প্রতিষ্ঠানটির আগের প্রতিবেদনে চলতি বছরের জন্য ব্রেন্ট ক্রুডের গড় দাম ৭৪ ডলার ৪০ সেন্ট প্রাক্কলন করা হয়েছিল। সূত্র: অয়েলপ্রাইসডটকম ও ব্লুমবার্গ।
Category: অন্যান্য দেশ
বেসরকারিখাত থেকে ৪৭ শতাংশ বিদ্যুৎ উৎপাদন হচ্ছে
নভেম্বর ২১, ২০১৮ বুধবার ০৫:০৩ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
বেসরকারি বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী কোম্পানীগুলো মোট বিদ্যুতের ৪৭ শতাংশ উৎপাদন করছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ইন্ডিপেনডেন্ট পাওয়ার প্রডিউসারস অ্যাসোসিয়েশন (বিপ্পা)। সংগঠনটির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত বিপ্পা এর তৃতীয় বার্ষিক সাধারণ সভায় এ তথ্য তুলে ধরে বিপ্পার সভাপতি মোহাম্মদ লতিফ খান বলেন, সঠিক নীতিমালা প্রনয়নের জন্য স্বতন্ত্র বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানসমূহের ৪৭ শতাংশ বিদ্যুৎ উৎপাদনের সুযোগ তৈরি হয়েছে। উক্ত সাধারন সভায় বিপ্পার বার্ষিক প্রতিবেদন এবং আগামী অর্থবছরের বাজেট অনুমোদন করা হয়। ২০১৫ সালে বিপ্পা মোট ৫০টি স্বতন্ত্র বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের সমন্বয়ে গঠিত হয়। এটি মূলত স্বতন্ত্র বিদ্যুৎ উৎপাদনকারি (আইপিপি) প্রতিষ্ঠানসমূহের ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রতিনিধিত্বকারী সংস্থা। বিপ্পা দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও উন্নয়নের জন্য টেকসই বিদ্যুৎ উৎপাদন ও নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।
Category: অন্যান্য
বুয়েটে পারমাণবিক শক্তি প্রযুক্তি বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত
নভেম্বর ১৭, ২০১৮ শনিবার ০৪:৪৪ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
রাশিয়ার ন্যাশনাল রিসার্চ নিউক্লিয়ার ইউনিভার্সিটি মেফি এবং বাংলাদেশ প্রকৌশলী বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) এর ইনস্টিটিউট অব নিউক্লিয়ার ইঞ্জিনিয়ারিং (আইএনপিই) এর যৌথ উদ্যোগে গত ৫ থেকে ৯ নভেম্বর বুয়েটে পারমাণবিক শক্তি প্রযুক্তি বিষয়ক একটি কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। বুয়েটের বিভিন্ন অনুষদের ৭০ জন শিক্ষার্থী কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন। ভিভিইআর-১০০০ এবং ভিভিইআর-১২০০ ভিত্তিক পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের যন্ত্রপাতি ও সরঞ্জাম, পারমাণবিক জ্বালানী চক্র, পারমাণবিক চুল্লির কোরের থার্মোহাইড্রোলিক প্রোফাইলিংসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয় কর্মশালায় অন্তর্ভূক্ত ছিল। মেফির তিন জন অধ্যাপক ড. দিমিত্রি সামোখিন, ড. ভি.ফিদোসিয়েভ এবং ড. অলগা মামোত এটি পরিচালনা করেন। সমাপনী দিনে ৯ নভেম্বর অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের মধ্যে সনদপত্র বিতরণ করা হয় বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। অনুষ্ঠানে আইএনপিই-এর পরিচালক ড. শেখ আনোয়ারুল ফাত্তাহ এবং প্রাক্তন পরিচালক ড. এম এ রশিদ সরকার, ঢাকাস্থ রুশ বিজ্ঞান ও সংস্কৃতি কেন্দ্রের পরিচালক এ.পি. ডেমিন, রুশ রাস্ট্রীয় পারমাণবিক শক্তি কর্পোরেশন রোসাটমের বাংলাদেশ প্রতিনিধি মিখাইল এস ব্রননিকভসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন। মেফির পারমাণবিক পদার্থ বিদ্যা এবং প্রকৌশল বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. দিমিত্রি সামোখিন অনুষ্ঠানে বলেন, “আমি অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে ব্যাপক আগ্রহ ও উৎসাহ লক্ষ্য করেছি। আমার বিশ্বাস ভবিষ্যতে বাংলাদেশের পারমাণবিক শক্তি কর্মসূচি বাস্তবায়নের  চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় তারা যথেষ্ট সক্ষমতার পরিচয় দিবেন। ভবিষ্যতে বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের জন্য আমরা এই জাতীয় আরো কোর্স আয়োজন করতে ইচ্ছুক।”  রুশ প্রযুক্তি ও আর্থিক সহায়তায় পাবনা জেলার রূপপুরে বাংলাদেশের প্রথম পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মিত হচ্ছে। কেন্দ্রটিতে সর্বাধুনিক ৩+ প্রজন্মের ভিভিইআর-১২০০ রি-অ্যাক্টর ভিত্তিক ২টি বিদ্যুৎ ইউনিট থাকবে। প্রতিটি ইউনিটের বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা হবে ১২০০ মেগাওয়াট। ভিভিইআর-১২০০ রি-অ্যাক্টর আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি এজেন্সি (আইএইএ) নির্ধারিত সকল নিরাপত্তা চাহিদা পূরণে সক্ষম। একটি আন্তঃসরকারী চুক্তির আওতায় রূপপুর প্রকল্পের জন্য প্রয়োজনীয় লোকবল প্রশিক্ষণে সহায়তা প্রদান করছে রাশিয়া। বর্তমানে শতাধিক বাংলাদেশী রুশ বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে পরমাণু বিজ্ঞান বিষয়ে উচ্চ শিক্ষা লাভ করছেন। রূপপুর প্রকল্পের এমপ্লয়িদের জন্য নিয়মিতভাবে প্রয়োজনীয় তাত্ত্বিক ও ব্যবহারিক কোর্সেরও আয়োজন করছে রোসাটম।
Category: নিউক্লিয়ার
‘প্রাকৃতিক গ্যাস আমদানিতে শীর্ষ অবস্থানে চীন’
নভেম্বর ১২, ২০১৮ সোমবার ০৬:৩৭ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
ক্রমবর্ধমান জ্বালানি চাহিদার বড় একটি অংশ আমদানি করা প্রাকৃতিক গ্যাস দিয়ে পূরণ করে চীন। এজন্য চীনে প্রাকৃতিক গ্যাস আমদানি উত্তরোত্তর বাড়ছে।   আসন্ন শীতকে সামনে রেখে বাড়তি চাহিদার চাপ সামলাতে বছরের শেষদিকে এসে প্রাকৃতিক গ্যাস আমদানি আরো বাড়িয়েছে দেশটি। চলতি বছরের প্রথম ১০ মাসে (জানুয়ারি-অক্টোবর) প্রাকৃতিক গ্যাসের শীর্ষ আমদানিকারক জাপানের তুলনায় চীনে জ্বালানি পণ্যটির আমদানি বেশি হয়েছে। চীনের সরকারি সূত্রের বরাতে এসএন্ডপি গ্লোবালের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮ সালের প্রথম ১০ মাসে আন্তর্জাতিক বাজার থেকে চীনা রপ্তানিকারকরা সব মিলিয়ে ৭ কোটি ২০ লাখ ৬০ হাজার টন প্রাকৃতিক গ্যাস আমদানি করেছেন, যা আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ৩৩ দশমিক ১ শতাংশ বেশি। ২০১৭ সালে চীনে মোট ৬ কোটি ৮৫ লাখ ৭০ হাজার টন প্রাকৃতিক গ্যাস আমদানি হয়েছিল। সে হিসেবে ২০১৮ সালের জানুয়ারি-অক্টোবর সময়ে চীনে জ্বালানি পণ্যটির আমদানি গত বছরের সম্মিলিত পরিমাণকে ছাড়িয়ে গেছে। এ সময় চীনের বাজারে আমদানি করা প্রাকৃতিক গ্যাসের উল্লেখযোগ্য একটি পরিমাণ এসেছে তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস (এলএনজি) হিসেবে। ২০১৭ সালে প্রাকৃতিক গ্যাস আমদানিকারক দেশগুলোর বৈশ্বিক তালিকায় শীর্ষে ছিল জাপান। তালিকায় এরপরই ছিল চীনের অবস্থান। চলতি বছরের প্রথম ১০ মাসে জাপানে সব মিলিয়ে ৬ কোটি ৭৩ লাখ ৬০ হাজার টন প্রাকৃতিক গ্যাস আমদানি হয়েছে বলে জানিয়েছে এসএন্ডপি গ্লোবাল। সে হিসেবে, গত জানুয়ারি-অক্টোবর সময়ে জাপানের তুলনায় চীনে অতিরিক্ত ৪৭ লাখ টন প্রাকৃতিক গ্যাস আমদানি হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে জ্বালানি পণ্যটির আমদানিকারকদের বৈশ্বিক তালিকায় জাপানকে টপকে শীর্ষে চলে গেছে চীন। এর আগে গত এপ্রিলে প্রাকৃতিক গ্যাস আমদানিকারকদের বৈশ্বিক তালিকায় প্রথমবারের মতো জাপানকে টপকে যায় চীন। ওই সময় চীনে মোট ৬৮ লাখ ১৮ হাজার টন প্রাকৃতিক গ্যাস আমদানি হয়েছিল। জাপানি আমদানিকারকরা গত এপ্রিলে ৬০ লাখ ৭৯ হাজার টন প্রাকৃতিক গ্যাস আমদানি করেছিল। সেটি ছিল শুধু এপ্রিলের হিসাব। বছরের প্রথম ১০ মাসে অতিরিক্ত আমদানি ২০১৮ সাল শেষে চীনকে প্রাকৃতিক গ্যাসের শীর্ষ আমদানিকারকের আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দেবে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।
Category: অন্যান্য দেশ
‘সৌর ও বায়ু বিদ্যুৎ উৎপাদনে পার্টনার খুঁজছে ইজিসিবি’
নভেম্বর ১১, ২০১৮ রবিবার ০৬:০১ পিএম - স্টাফ করেসপনডেন্ট, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
নবায়নযোগ্য জ্বালানির প্রসারে ১০০ মেগাওয়াটের সৌর এবং ১০ মেগাওয়াটের বায়ুভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে যৌথ অংশীদারিত্ব চুক্তি করতে কোম্পানী খুঁজছে ইলেকট্রিসিটি জেনারেশন কোম্পানী অব বাংলাদেশ (ইজিসিবি)। ফেনীর সোনাগাজীতে নির্মিতব্য পৃথক সৌর ও বায়ু বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের জন্য কোম্পানীটি ইতোমধ্যে দেশি-বিদেশী কোম্পানীর কাছ থেকে এক্সপ্রেশন অব ইন্টারেস্ট বা আগ্রহপত্র চেয়েছে বলে একজন কর্মকর্তা জানান। চলতি বছরের ১৯ ডিসেম্বরের মধ্যে আগ্রহপত্র জমা দেওয়া যাবে। আগ্রহী কোম্পানী নির্বাচিত হওয়ার পর ওই কোম্পানীর সাথে পৃথক দুই বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে সমঝোতা স্মারক এবং জয়েন্ট ভেঞ্চার এগ্রিমেন্ট সই করা হবে। বর্তমানে ইজিসিবির নারায়নগঞ্জে ২১০ মেগাওয়াট, ৩৩৫ মেগাওয়াট এবং ৪১২ মেগাওয়াটের গ্যাসভিত্তিক তিন বিদ্যুৎ কেন্দ্র রয়েছে।
Category: নবায়নযোগ্য
পেট্রোবাংলার নতুন চেয়ারম্যান রুহুল আমীন
নভেম্বর ০৮, ২০১৮ বৃহস্পতিবার ০৮:৫১ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোঃ রুহুল আমীনকে পেট্রোবাংলার নতুন চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে সরকার। বৃহস্পতিবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, রুহুল আমীনকে প্রেষণে ওই পদে নিয়োগ দেওয়া হলো। কয়েক বছর আগে তিনি পেট্রোবাংলার পরিচালক (প্রশাসন) হিসেবে কর্মরত ছিলেন। বিসিএস ১৯৮৫ ব্যাচের এই কর্মকর্তা জন্মগ্রহণ করেন গোপালগঞ্জ জেলায়। পেট্রোবাংলার সাবেক চেয়ারম্যান আবুল মনসুর মো. ফয়জুল্লাহ বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব পদে নিয়োগ পেয়েছেন।
Category: অন্যান্য
জলবিদ্যুৎ উৎপাদনে এশিয়ায় সর্বনিম্নে বাংলাদেশ
নভেম্বর ০৫, ২০১৮ সোমবার ১১:৩৩ এএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
জলবিদ্যুৎ উৎপাদনে এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে সর্বনিম্ন অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ। খরস্রোতা নদীর পানির শক্তিকে কাজে লাগিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদনে ২০১৭ সাল থেকেই বাংলাদেশ এই অবস্থানে। ইন্টারন্যাশনাল হাইড্রোপাওয়ার অ্যাসোসিয়েশনের ২০১৮ সালের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, বর্তমানে বাংলাদেশ ২৩০ মেগাওয়াট জলবিদ্যুৎ উৎপাদন করে। আর তালিকার শেষদিক থেকে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে পাশ্ববর্তী দেশ নেপাল। হিমালয়ের এই দেশটি উৎপাদন করে ৯৬৮ মেগাওয়াট জলবিদ্যুৎ। এতে আরো বলা হয়, জলবিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়াতে প্রতিবেশী দেশগুলোকে সঙ্গে নিয়ে এরই মধ্যে বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে বাংলাদেশ। জলবিদ্যুৎ উৎপাদনে এশিয়ায় শীর্ষস্থান চীনের। এর পরই রয়েছে জাপান ও ভারত। প্রতিবেদনে বলা হয়, বিশ্বের মধ্যে পূর্ব এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে জলবিদ্যুৎ উৎপাদন বৃদ্ধির হার সবচেয়ে বেশি।
Category: নবায়নযোগ্য
বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির পূর্বাভাস
নভেম্বর ০১, ২০১৮ বৃহস্পতিবার ১১:০৩ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
বিশ্ববাজারে জ্বালানির (তেল, গ্যাস ও কয়লা) দাম এক বছরের ব্যবধানে গড়ে ৩৩ ভাগ বেড়েছে। চলতি বছর অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দাম ব্যারেল প্রতি ৭২ ডলার। আগামী বছর এই দাম আরো বেড়ে ৭৪ ডলার পর্যন্ত হতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে বিশ্বব্যাংক।  বুধবার প্রকাশিত কমোডিটি মার্কেট আউটলুক শীর্ষক ত্রৈমাসিক পূর্বাভাস প্রতিবেদনে এমনটি উল্লেখ করা হয়েছে।  এতে বলা হয়েছে, বিশ্বব্যাপী বাণিজ্য নিয়ে উত্তেজনা পণ্য বাজারে ঝাঁকুনি তৈরি করেছে।  সার্বিক বিবেচনায় পণ্যমূল্য কমে যাওয়ার পূর্বাভাস দিয়েছে সংস্থাটি।  এপ্রিলের প্রতিবেদনে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির যে পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছিল সেটি আরও ১৩ শতাংশ বাড়িয়ে অক্টোবরে প্রতিবেদন হালনাগাদ করা হয়েছে। মূলত ভেনেজুয়েলার তেল উত্তোলন হ্রাস পাওয়া এবং ইরানে নতুন করে মার্কিন অবরোধের ফলে সাম্প্রতিক তেলের বাজার ঊর্ধ্বমুখী হয়েছে। অন্যদিকে এশিয়া ও ইউরোপে কয়লা ও গ্যাস ভিত্তিক বিদ্যুত্ উত্পাদন বৃদ্ধি পাওয়ায় বিশ্ববাজারে কয়লা ও গ্যাসের দামও বেড়েছে। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, ২০১৭ সালের মতো এবছরও কৃষিপণ্যের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।  তবে আগামী বছর গড়ে ২ শতাংশ বাড়তে পারে।  সেই সঙ্গে সারেরও দর ২ শতাংশ বাড়তে পারে।  জ্বালানি তেলের দর বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে পরিবহন খরচ, সার উত্পাদন খরচসহ আনুষঙ্গিক খরচ বৃদ্ধি পেলে কৃষি পণ্যের দরও বাড়তে পারে বলে পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।    
Category: অন্যান্য দেশ
‘রুশ সহায়তায় নির্মিত আরো একটি চীনা পারমাণবিক বিদ্যুৎ ইউনিট গ্রিডে যুক্ত হয়েছে’
অক্টোবর ২৮, ২০১৮ রবিবার ০৬:৪৬ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
চীনের তিয়ানওয়ান পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের চতুর্থ ইউনিট গত ২৭ অক্টোবর জাতীয় গ্রীডে বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু করেছে। রুশ সহায়তায় নির্মিত ইউনিটে রাশিয়ার ডিজাইনকৃত ভিভিইআর- ১০০০ রি-অ্যাক্টর ব্যবহৃত হয়েছে বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে। রুশ রাষ্ট্রীয় কর্পোরেশন রোসাটমের মহাপরিচালক আলেক্সি লিখাচোভ তিয়ানওয়ান পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রটিকে চীন-রুশ সহযোগিতার ক্ষেত্রে বৃহত্তম বিদ্যুৎ প্রকল্প হিসেবে আখ্যায়িত করে বলেন, “আমি আশা প্রকাশ করি যে তিয়ানওয়ান প্রকল্পের দ্বিতীয় ধাপ এবং জুডাপু সাইটে পরিকল্পিত নতুন আরেকটি পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণেও আমাদের সহযোগিতা ফলপ্রসূ হবে।” চীনা নিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষের অনুমোদন প্রাপ্তির পর চতুর্থ ইউনিটির ক্যাপাসিটি ২৫ শতাংশ পর্যন্ত উন্নীত করার পর টার্বাইন সক্রিয় করা হয়। একই সাথে প্রয়োজনীয় বিভিন্ন পরীক্ষাও চালানো হয়। তারপরই ইউনিটটি যুক্ত হয় জাতীয় গ্রীডে। ইউনিটটির সকল সিস্টেম স্বাভাবিকভাবে কাজ করছে। রি-অ্যাক্টরের অপারেশন ২০০ মেগাওয়াট উৎপাদনে রেখে পরীক্ষা করার পর এর ক্যাপাসিটি ক্রমান্বয়ে ৫০ শতাংশ, ৭৫ শতাংশ এবং ১০০ শতাংশে উন্নীত করা হবে। পূর্ণ ক্ষমতায় বিদ্যুৎ উৎপাদনকালে প্রাথমিক  সকল পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হবে এবং ইউনিটটি একটি নামমাত্র ক্যাপাসিটিতে ১০০ ঘণ্টা ধরে চালানো হবে। এর পরেই প্রাথমিক একসেপ্টন্স প্রক্রিয়া শুরু করা হবে। এর মাধ্যমেই সূচনা হবে ইউনিটটির দুই বছর কার্যক্রমের গ্যারান্টি পিরিয়ড। রোসাটমের প্রকৌশল শাখা এটস্ত্রইএক্সপোর্টের প্রধান ভ্যালেরি লিমারেনকার মতে তিয়ানওয়ান বিদ্যুৎকেন্দ্রের চতুর্থ ইউনিটের স্টার্ট-আপ রুশ-চীনা বিশেষজ্ঞ দলের জন্য আরো একটি বিজয়। তিনি বলেন, “কয়েক দশক ধরে চলমান আমাদের পার্টনারশীপ ভবিষ্যতের কাজের সফলতায় অতিরিক্ত অনুপ্রেরণা জোগাবে। আমাদের সামনে আরো বড় চ্যালেঞ্জ আসছে কারণ চীনে ভিভিইআর-১২০০ রি-অ্যাক্টর ভিত্তিক কমপক্ষে আরো চারটি বিদ্যুৎ ইউনিট নির্মাণ করতে হবে।” রুশ প্রতিষ্ঠান এটস্ত্রইএক্সপোর্টের সহায়তায় তিয়ানওয়ান পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের নির্মাণ কাজ পরিচালনা করছে চীনের জিয়াংসু নিউক্লিয়ার পাওয়ার কর্পোরেশন। প্রথম ও দ্বিতীয় ইউনিটটি ২০০৭ সাল থেকে চীনের জাতীয় গ্রীডে বিদ্যুৎ সরবরাহ করে আসছে। তৃতীয় ইউনিটি গ্রীডে যুক্ত হয়েছে ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসে।   
Category: অন্যান্য দেশ
‘স্বপ্নের ঠিকানা বিশ্বের অন্যান্য দেশের জন্য রোল মডেল’
অক্টোবর ২৬, ২০১৮ শুক্রবার ০৭:৩৭ এএম - স্টাফ করেসপনডেন্ট, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় ধানখালী ইউনিয়নে পায়রা ১,৩২০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনে অধিগ্রহণকৃত ক্ষতিগ্রস্ত ভূমি মালিকদের পুনর্বাসন প্রকল্প স্বপ্নের ঠিকানা শনিবার উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিদ্যুৎ বিভাগের অন্যতম প্রতিষ্ঠান পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক প্রকৌশলী মোহাম্মদ হোসাইন জানান, কয়লাভিত্তিক এ বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের জন্য যাদের জমি ও বসতবাড়ি অধিগ্রহণ করা হয়েছিলো তাদের বসবাসের কথা মাথায় রেখে পুনর্বাসন কেন্দ্রটি নির্মাণ করা হয়েছে। এই কেন্দ্রটির নাম দেয়া হয়েছে স্বপ্নের ঠিকানা। তিনি বলেন, পুনর্বাসন কেন্দ্র উদ্বোধনের জন্য যাবতীয় কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত ভূমি মালিকরা তাদের নতুন স্বপ্নের ঠিকানায় বসবাস করার সুযোগ পাবেন। তিনি আরো বলেন, বিদ্যুৎ প্রকল্প এলাকার পাশেই ক্ষতিগ্রস্ত ১৩০টি পরিবারকে পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এটি একটি স্বয়ং সম্পূর্ণ এবং অত্যাধুনিক প্রকল্প যেখানে স্কুল, মসজিদ, কমিউনিটি সেন্টার, খেলার মাঠসহ নানা ধরণের নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করা হয়েছে। এটি বাংলাদেশের অন্যান্য মেগা প্রকল্প তথা বিশ্বের অন্যান্য দেশের জন্য একটি রোল মডেল হিসেবে বিবেচিত হবে বলে মনে করেন মহাপরিচালক। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বরাদ্দপ্রাপ্ত মালিকদের হাতে প্রধানমন্ত্রী চাবি হস্তান্তর করবেন বলে জানান মোহাম্মদ হোসাইন। বিদ্যুৎ বিভাগের আওতাধীন নর্থ-ওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানী লিমিটেড এবং চায়না ন্যাশনাল মেশিনারি ইমপোর্ট অ্যান্ড এক্সপোর্ট করপোরেশন (সিএমসি) এর যৌথ উদ্যোগে গঠিত বাংলাদেশ-চায়না পাওয়ার কোম্পানী লিমিটেড কলাপাড়ায় এ বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ করছে। আগামী বছরের মে মাসে কেন্দ্রটি থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু হবে বলে আশা করছেন কর্মকর্তারা। নর্থ-ওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানী লিমিটেড এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এ এম খোরশেদুল আলম বলেন, স্বপ্নের ঠিকানা উদ্বোধনের জন্য আমরা প্রস্তুত। যেখানে ১৩০টি পরিবারের জন্য থাকছে বাড়ি। এই প্রকল্পের জন্য ১৬ একর জমি বরাদ্দ করা হয়েছে। প্রকল্পে ছয় শতাংশ জমিসহ ১০০০ বর্গফুট আয়তনের ৪৮টি সেমিপাকা বাড়ি এবং আট শতাংশ জমিসহ ১২০০ বর্গফুট আয়তনের সেমিপাকা ৮২টি বাড়ি রয়েছে। প্রতিটি বাড়িতে চারটি কক্ষ, দুটি বাথরুম, বিদ্যুৎ সংযোগসহ বিশুদ্ধ পানি সরবরাহের ব্যবস্থাও থাকছে। খোরশেদুল আলম আরো বলেন, মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য এ প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। বিদ্যুৎ কেন্দ্রের আশপাশের জনগণকে আমরা আশ্বস্ত করতে চাই কয়লাভিত্তিক এই বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি আল্ট্রা-সুপার ক্রিটিক্যাল প্রযুক্তিতে নির্মাণ হচ্ছে। তাই এ কেন্দ্রটি হবে নিরাপদ ও অত্যাধুনিক। দেশে প্রথম বৃহৎ আকারের কয়লাভিত্তিক এ কেন্দ্রটি আগামী বছরের মাঝামাঝি উৎপাদনে আসবে বলে জানান তিনি।
Category: বিদ্যুৎ
উত্তরায় ডেসকোর আরেকটি গ্রিড উপকেন্দ্র উদ্বোধন
অক্টোবর ২৪, ২০১৮ বুধবার ০৮:২৮ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
গ্রাহক সন্তুষ্টি নিশ্চিত করতে সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা গ্রহণ করার আহ্বান জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। বুধবার ঢাকায় ডেসকোর উদ্যোগে আয়োজিত ‘সেক্টর-১৮, উত্তরা ১৩২/৩৩/১১ কেভি গ্রিড উপকেন্দ্র’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। তিনি বলেন, প্রতিবছর প্রায় ২০% গ্রাহক বাড়ছে। সেবা নিয়ে তাদের কাছে যান। উন্নত সেবা প্রাতিষ্ঠানিক সমৃদ্ধিতেও সহযোগিতা করবে।    তিনি আরো বলেন, গ্রাহক হয়রানি ও সাশ্রয়ের জন্য প্রি-পেইড মিটার কার্যকর অবদান রাখতে পারে। এ কার্যক্রম কাঙ্খিতভাবে এগুচ্ছে না। বর্তমানে ডেসকোর গ্রাহক ৮ লাখ ৮৫ হাজার অথচ প্রি-পেইড মিটার স্থাপন করা হয়েছে মাত্র ১ লাখ ৮৬ হাজার, তন্মধ্যে মাত্র ৭০,০০০ স্মার্ট প্রি-পেইড মিটার। প্রতিমন্ত্রী বলেন, ভূগর্ভস্থ তার স্থাপনে প্রাথমিকভাবে খরচ বাড়লেও বিদ্যুৎ অপচয় কম হয়। ঢাকা ইলেক্ট্রিক সাপ্লাই কোম্পানী  লিমিটেড (ডেসকো) মিরপুর, উত্তরা, গুলশান, টঙ্গী ও পূর্বাচল নতুন শহরসহ প্রায় ৪০০ বর্গ কিলোমিটার ভৌগলিক এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ করছে। ২০৪১ সাল নাগাদ প্রায় ৩৫ লাখ ৪৮হাজার গ্রাহকদের সেবা প্রদান করতে পরিকল্পনা নিয়ে সংস্থাটি কাজ করছে। নির্মাণাধীন ৫টি ১৩২/৩৩/১১ কেভি গ্রিড উপকেন্দ্র নির্মাণ কাজ শেষ হলে অত্র এলাকায় ৪ লাখ ৫০ হাজার জন গ্রাহকের নতুন সংযোগের সক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে, গ্রাহক প্রান্তে আরো নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করা যাবে এবং লো-ভোল্টেজ সমস্যার সমাধানসহ কারিগরী লস কম হবে।   ডেসকো পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান মাহবুব-উল-আলম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব ড. আহমদ কায়কাউস ও পিডিবির চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ বক্তব্য রাখেন।
Category: বিদ্যুৎ
দ্রুত সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও বাস্তবায়নে কার্যকর অবদান রাখবে ইআরপি
অক্টোবর ২২, ২০১৮ সোমবার ১১:০৩ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
দ্রুত সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও বাস্তবায়নে ইআরপি কার্যকর অবদান রাখবেবলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। সোমবার ঢাকায় বিদ্যুৎ ভবনে বিদ্যুৎ বিভাগ আয়োজিত এন্টারপ্রাইজ রিসোর্স প্ল্যানিং (ইআরপি) সংযোজনের প্রাথমিক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।   তিনি বলেন, দেশ এগিয়ে চলছে, উন্নত বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে আধুনিক প্রযুক্তি সংযোজন সময়ের দাবি। আধুনিক-উন্নত বাংলাদেশ গড়তে প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়াতেই হবে। এ প্রযুক্তি আমাদের সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহার নিশ্চিত করবে। ইআরপি হচ্ছে একটি সফটওয়্যার।যার মাধ্যমে আর্থিক ও মানব সম্পদসহ গ্রাহক সেবার নানা তথ্য সমন্বয়ের মাধ্যমে একটি প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করা হয়। ইআরপি বাস্তবায়িত হলে নিজেদের ড্যাশ বোর্ড থেকেই প্রয়োজনীয় তথ্য পাওয়া যাবে। ফলে অন্যের উপর নির্ভরশীল না হয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত গ্রহন সম্ভব হবে বলে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে। মানব সম্পদ ও এর সুষ্ঠু ব্যবহার, সরবরাহ চেন, গ্রাহক সেবা, প্রকল্প, ক্রয়-বিক্রয়, সম্পদ ইত্যাদির সঠিক ব্যবস্থাপনায় ইআরপি তাৎপর্যময় অবদান রাখে। প্রাথমিকভাবে বিদ্যুৎ বিভাগ ও এর আওতাধীন ১৪টি সংস্থা ইআরপি ব্যবস্থাপনার আওতাভূক্ত হবে। মাইক্রোসফট, কম্পিউটার সার্ভিসেস, টেকনো হেভেন ও টেক ভিশন এই চারটি সংস্থার সাথে বিদ্যুৎ বিভাগ  ইআরপি বাস্তবায়ন সংক্রান্ত চুক্তি সোমবার সই করেছে। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব ডঃ আহমদ কায়কাউস, পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক মোহাম্মদ হোসেন ও মাইক্রোসফটের প্রতিনিধি গিয়াস উদ্দিন বক্তব্য রাখেন।  
Category: অন্যান্য
    সাম্প্রতিক খবর   সর্বাধিক পঠিত
ডিপিডিসি’র নতুন ব্যবস্থাপনা পরিচালক হলেন প্রকৌশলী বিকাশ দেওয়ান
পেট্রোবাংলার নতুন চেয়ারম্যান আবুল মনসুর মো. ফয়জুল্লাহ
‘পিডিবি’র বড় অর্জন দেশের ৭৬ শতাংশ এলাকা এখন বিদ্যুতের আওতায়’
পুরনো তিন বিদ্যুৎকেন্দ্র আলাদাভাবে পাওয়ার হাবে রূপান্তর হচ্ছে
পেট্রোবাংলার নতুন চেয়ারম্যান রুহুল আমীন
বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানীর নতুন ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাবিব উদ্দিন
পিডিবি’র নিয়ন্ত্রণাধীন বিতরণ এলাকা নিয়ে কোম্পানি গঠনের বিরুদ্ধে আবারও আন্দোলন
প্রসঙ্গঃ রামপাল কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র-পরিবেশ ও প্রতিবেশের উপর প্রভাব
‘এলপি গ্যাস অপারেশনাল লাইসেন্সিং নীতিমালা প্রণয়ন করেছে সরকার’
পদোন্নতি পেয়ে মেজর জেনারেল হলেন পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড চেয়ারম্যান মঈন উদ্দিন
    FOLLOW US ON FACEBOOK


Explore the energynewsbd.com
হোম
এনার্জি ওয়ার্ল্ড
মতামত
পরিবেশ
অন্যান্য
এনার্জি বিডি
গ্রীণ এনার্জি
সাক্ষাৎকার
বিজনেস
আর্কাইভ
About Us Contact Us Terms & Conditions Privacy Policy Advertisement Policy

   Editor & Publisher: Aminur Rahman
   Copyright @ 2015-2018 energynewsbd.com
   All Rights Reserved | Developed By: Jadukor IT