ঢাকা, সোমবার, জুন ১৮, ২০১৮, আষাঢ় ৪, ১৪২৫ ১১:৩২ পিএম
  
হোম এনার্জি বিডি এনার্জি ওয়ার্ল্ড গ্রীণ এনার্জি মতামত সাক্ষাৎকার পরিবেশ বিজনেস অন্যান্য আর্কাইভ
সর্বশেষ >
English Version
   
অন্য শীর্ষ খবর
‘৪০০ কেভি বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইন নির্মাণে পদ্মা নদী ক্রসিং এর কাজ শুরু হচ্ছে’
নির্মাণাধীন আমিনবাজার-মাওয়া-মংলা ৪০০ কেভি ডবল সার্কিট বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনের পদ্মা নদী ক্রসিং স্থানের কাজ শুরু হতে যাচ্ছে। পাওয়ার গ্রীড কোম্পানী অব বাংলাদেশ লিমিটেড (পিজিসিবি) আগামী ৩০ মাসের মধ্যে কাজটি শেষ করবে। এজন্য ভারতীয় প্রতিষ্ঠান কেইসি ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডকে  টার্নকী ঠিকাদার নিয়োগ করেছে পিজিসিবি। গত ১২ জুন পিজিসিবি’র প্রধান কার্যালয়ে উভয় প্রতিষ্ঠানের মধ্যে চুক্তি সই হয় বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। চুক্তিপত্রে বলা হয়েছে, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সঞ্চালন লাইনটির সাড়ে সাত কিলোমিটার দীর্ঘ রিভারক্রসিং অংশের কাজ শেষ করে পিজিসিবি’র কাছে হস্তান্তর করতে হবে। এ নির্মাণ কাজে ব্যয় হবে প্রায় ১২৩ কোটি টাকা। উন্নয়ন সহযোগী এশিয়ান ডেভলপমেন্ট ব্যাংক, বাংলাদেশ সরকার এবং পিজিসিবি সম্মিলিতভাবে এ কাজে অর্থায়ন করছে। পিজিসিবি’র গৃহীত আমিনবাজার-মাওয়া-মংলা ৪০০ কেভি সঞ্চালন লাইন প্রকল্প’র আওতায় কাজটি করা হচ্ছে। আমিনবাজার-মাওয়া-মংলা সঞ্চালন লাইনের মাধ্যমে রামপাল এবং পায়রায় নির্মাণাধীন বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলোয় উৎপাদিতব্য বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রীডে সঞ্চালন করা হবে। সঞ্চালন লাইনটির রিভারক্রসিংয়ের জন্য পদ্মা নদীতে সাতটি উঁচু টাওয়ার স্থাপন করতে হবে। সেতু নির্মাণ কর্তৃপক্ষ টাওয়ারসমূহ স্থাপনের জন্য নদীতে বেজলাইন তৈরি করে দিচ্ছে। অনুষ্ঠানে পিজিসিবি’র পক্ষে কোম্পানী সচিব মোঃ আশরাফ হোসেন এবং কেইসি’র পক্ষে কান্ট্রি হেড কুলদ্বীপ কুমার সিনহা চুক্তিপত্রে সই করেন। পিজিসিবি’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাসুম-আলবেরুনী দ্রুততার সঙ্গে কাজ শেষ করতে কেইসি কর্মকর্তাদের প্রতি তাগিদ দেন। পিজিসিবি’র নির্বাহী পরিচালক মোঃ শাফায়েত হোসেন ও মোঃ এমদাদুল ইসলাম, প্রকল্প পরিচালক আব্দুল মোনায়েম চৌধুরী, কেইসি’র প্রজেক্ট ম্যানেজার অরুদ্র নাথ, সিনিয়র ইঞ্জিনিয়ার সুনীল কুমার সহ উভয়পক্ষের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।  
‘আগামী ৮ দিনের মধ্যে এলএনজি জাতীয় গ্রিডে যোগ হবে’
জুন ১১, ২০১৮ সোমবার ০৮:১৩ পিএম - স্টাফ করেসপনডেন্ট, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
আগামী আট দিনের মধ্যে আমদানিকৃত এলএনজি (তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস) জাতীয় গ্রিডে যোগ হবে বলে জানিয়েছেন পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান আবুল মনসুর মো. ফয়জুল্লাহ। সোমবার ঢাকায় কারওয়ানবাজারে টিসিবি ভবনে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরী কমিশনের কাছে গ্যাসের সঞ্চালন ট্যারিফ বাড়ানোর বিষয়ে গনশুনানীর আগে বক্তব্যে একথা বলেন তিনি। তিনি বলেন, এলএনজি আমদানি করে আমরা লাভ করতে চাই না। যা খরচ হবে সেই দাম পেলে আমরা সন্তুষ্ট থাকবো। এজন্য যৌক্তিকভাবে গ্যাসের দাম বাড়ানো যেতে পারে। তবে কি পরিমাণ এলএনজি জাতীয় গ্রিডে সরবরাহ করা হবে তা উল্লেখ করেননি তিনি। এরপর পেট্রোবাংলার মহাব্যবস্থাপক নজরুল ইসলাম তার উপস্থাপনায় আমদানিকৃত এলএনজি জাতীয় গ্যাস গ্রিডে যোগ হলে কেমন প্রভাব পড়বে তা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, আমদানিকৃত এলএনজি এর মূল্য প্রতি হাজার ঘনফুট ৮ দশমিক ৫০ ডলার বিবেচনা করে দেশীয় উৎপাদিত গ্যাসের সাথে মিশ্রণ করা হলে প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের বিক্রয়মূল্য দাঁড়াবে ১২ টাকা ৮৯ পয়সা। আর যদি আমদানিকৃত এলএনজি এর মূল্য প্রতি হাজার ঘনফুট ১০ দশমিক ৭৬ ডলার বিবেচনা করে দেশীয় উৎপাদিত গ্যাসের সাথে মিশ্রণ করা হলে প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের বিক্রয়মূল্য দাঁড়াবে ১৫ টাকা। উভয়ক্ষেত্রে সাপ্লিমেনটারি ডিউটি অব্যাহতি বিবেচনা করে এলএনজি বিক্রয়মূল্যের হিসাব করা হয়েছে বলে জানান তিনি।  
Category: গ্যাস
‘এলএনজিবাহী জাহাজ চলাচলে সমুদ্র এলাকায় মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা চায় পেট্রোবাংলা’
জুন ০৯, ২০১৮ শনিবার ০৫:২২ পিএম - News Desk, energynewsbd.com
আমদানিকৃত এলএনজি বহনকারী জাহাজ ও ভাসমান টার্মিনালের নিরাপত্তার স্বার্থে কক্সবাজারের কলাতলীর পশ্চিমে গভীর সমুদ্র থেকে মহেশখালী দ্বীপ পর্যন্ত ২০ কিলোমিটার সমুদ্র এলাকায় মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা চেয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা পেট্রোবাংলা। তেল, গ্যাস ও খনিজ সম্পদ করপোরেশন (পেট্রোবাংলা) এর একজন কর্মকর্তা জানান, ভাসমান এলএনজি টার্মিনাল মহেশখালী দ্বীপ থেকে সাড়ে তিন-চার কিলোমিটার দূর সমুদ্রে অবস্থান করছে। এজন্য সমুদ্রের ওই এলাকায় মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা চাওয়া হয়েছে। এছাড়া সেখান থেকে ২ দশমিক ২৯ কিলোমিটার উত্তরে সামিট গ্রুপ আরেকটি এলএনজি টার্মিনালটি নির্মাণ করছে। মূলত পেট্রোবাংলার এলএনজিবাহী জাহাজটি কলাতলী সৈকত থেকে ১৭ কিলোমিটার পশ্চিমে এবং এলএনজি টার্মিনাল থেকে ১৭ কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্বে নোঙর করে রাখা হবে। এলএনজি টার্মিনাল তদারকির দায়িত্বে রয়েছে পেট্রোবাংলার অধীনস্থ রূপান্তরিত প্রাকৃতিক গ্যাস কোম্পানি লিমিটেড (আরপিজিসিএল)। আরপিজিসিএল এর নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন ব্যবস্থাপক বলেন, এলএনজি প্রকল্পের নিরাপত্তার জন্য জাহাজ নোঙর করার অবস্থান থেকে পেট্রোবাংলা ও সামিটের ভাসমান টার্মিনাল পর্যন্ত মোট ২০ কিলোমিটার উপকূলজুড়ে অর্থাৎ কলাতলী থেকে মহেশখালী দ্বীপ পর্যন্ত মৎস্য শিকার না করার অনুরোধ করা হয়েছে। তবে এটা সব সময়ের জন্য নয়, কেবল জাহাজ চলাচলের সময় বন্ধ করতে বলা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, এলএনজিবাহী জাহাজ চলাচলের সময় সাগরে জাল থাকলে জাহাজ আটকে যাওয়ার ঝুঁকি থাকে। কাতারসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ থেকে সমুদ্রপথে এলএনজি নিয়ে আসা জাহাজ, সার্ভিস ভেসেল ও ভাসমান টার্মিনালের নিরাপত্তা বাংলাদেশ সরকারকে নিশ্চিত করতে হবে। এজন্য মৎস্য আহরণ নিষিদ্ধ ঘোষণা করতে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিতে সম্প্রতি জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগে চিঠি পাঠিয়েছে পেট্রোবাংলা। দেশে ইলিশের পাঁচটি অভয়ারণ্যের একটি কক্সবাজারের মহেশখালী। তবে উপকূলজুড়ে মৎস্য শিকার বন্ধ হলে ক্ষতিগ্রস্ত হবে এ পেশার সঙ্গে জড়িত কয়েক হাজার মানুষ। যদিও পেট্রোবাংলা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য মৎস্য শিকার বন্ধ রাখতে চায়। বর্তমানে দেশে দৈনিক ৪০০ কোটি ঘনফুট গ্যাসের চাহিদা রয়েছে। এর বিপরীতে সরবরাহ করা হচ্ছে ২৭০ কোটি ঘনফুট গ্যাস। আর সংকট ক্রমেই বাড়ছে। তাই ঘাটতি দূর করতে এলএনজি আমদানির উদ্যোগ নেয় জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ।
Category: অন্যান্য
‘স্থলভাগে ১০৮টি গ্যাস কূপ খনন করা হবে’
জুন ০৬, ২০১৮ বুধবার ০৩:৪৩ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে গ্যাস অনুসন্ধানকে বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। এলএনজি সরবরাহ, স্থলভাগে নতুন গ্যাস অনুসন্ধানের জন্য ১০৮টি কুপ খনন, প্রাকৃতিক গ্যাসের বিকল্প হিসেবে এলপিজি’র ব্যবহার সম্প্রসারণ ইত্যাদি কার্যক্রম দ্রুততার সাথে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। মঙ্গলবার ঢাকায় সোনারগাঁও হোটেলে শেভরন বাংলাদেশ আয়োজিত ‘স্টেক হোল্ডার ইভেন্ট’ এ বক্তব্য কালে এ কথা বলেন তিনি। প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতকে অগ্রাধিকার দিয়ে সরকার যে উন্নত বাংলাদেশ গড়ার পরিকল্পনা নিয়েছে তা পরিকল্পনা মাফিক এগুচ্ছে। ইতোমধ্যে ৯০ ভাগ মানুষ বিদ্যুৎ পাচ্ছে। চর এলাকায় সোলার হোম সিষ্টেম ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। সরকার বিশেষ ভতুর্কী দেয়ায় ৫২ লক্ষ সোলার হোম সিষ্টেম স্থাপিত হয়েছে। তিনি এ সময় শেভরনের কার্যক্রমে সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, জ্বালানি নিরাপত্তা আরো নিশ্চিত করতে সব অপারেটরদের সাথে নতুন নতুন উদ্যোগ নিয়ে কাজ করতে হবে। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সচিব আবু হেনা মোঃ রাহমাতুল মুনিম, পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান আবুল মনসুর মোঃ ফয়জুল্লাহ, যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মিজ মার্সিয়া বার্নিকাট  ও শেভরন বাংলাদেশের সদ্য বিদায়ী প্রেসিডেন্ট কেভিন লিয়ন  বক্তব্য রাখেন। এ সময় শেভরন বাংলাদেশের নবনিযুক্ত প্রেসিডেন্ট নেইলি মেনজিসকে সবার সাথে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয়।
Category: গ্যাস
শেভরন বাংলাদেশের নতুন প্রেসিডেন্ট নীল মেনজিস
জুন ০৬, ২০১৮ বুধবার ০৩:১৩ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
শেভরন বাংলাদেশের নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে গত ৩ জুন দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন। নীল এর আগে শেভরনের ইউরেশিয়ান বিজনেস ইউনিটের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক পদে কর্মরত ছিলেন। শেভরন বাংলাদেশের একটি অন্যতম বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান। কোম্পানীটি দেশে অর্ধেকেরও বেশি প্রাকৃতিক গ্যাস উত্তোলন করে। শেভরন বাংলাদেশের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট কেভিন লিওনের স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন নীল। কেভিন ২০১৫ সালের ১ জানুয়ারি থেকে এই পদে নিযুক্ত হন। তাকে বর্তমানে শেভরনের ইউরেশিয়ান বিজনেস ইউনিটের বিশেষ উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে।
Category: অন্যান্য
ক্ষুদ্র মডিউলার রি-অ্যাক্টর ক্ষেত্রে রুশ-জর্দান সহযোগিতা
জুন ০১, ২০১৮ শুক্রবার ০৫:১৫ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
রাশিয়া এবং জর্দান ক্ষুদ্র মডিউলার রি-অ্যাক্টর ক্ষেত্রে পারস্পরিক সহযোগিতার পরিধি আরো বিস্তৃত ও জোরদার করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। জর্দানে পরিবর্তিত এনার্জি মার্কেটের প্রেক্ষাপটে দেশটিতে রুশ ডিজাইনকৃত ক্ষুদ্র মডিউলার রি-অ্যাক্টর স্থাপনের সম্ভাব্যতা নিরুপনের লক্ষ্যে জর্দান পরমাণু শক্তি কমিশন ইতোমধ্যে রোসাটম ওভারসিজের সঙ্গে একটি চুক্তি স্ই করেছে বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে। জর্দান পরমাণু শক্তি কমিশনের চেয়ারম্যান ড. খালেদ তৌকান এ প্রসঙ্গে বলেন, “রোসাটমের সঙ্গে আমরা বহু বছর ধরেই যৌথভাবে কাজ করে আসছি। আমরা এই পারস্পরিক সহযোগিতা বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিস্তৃত করতে যাচ্ছি। বর্তমানে আমাদের জন্য ক্ষুদ্র মডিউলার রি-অ্যাক্টর ভিত্তিক পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প নির্মাণ অধিকতর প্রয়োজনীয় ও প্রাসঙ্গিক। অতএব এটির ওপরই আমরা আমাদের লক্ষ্য কেন্দ্রীভূত করতে চাই।” ক্ষুদ্র মডিউলার রি-অ্যাক্টর এনার্জি ক্ষেত্রে রোসাটমের ব্যাপক অভিজ্ঞতা ও বিশেষজ্ঞ জ্ঞান বিশ্বব্যাপী স্বীকৃত। ২০১৯ সালে বিশ্বের প্রথম ভাসমান পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র একাডেমিক লামানোসভ উদ্বোধন করতে যাচ্ছে রোসাটম। এছাড়াও স্থলভাগে স্থাপনযোগ্য ক্ষুদ্র মডিউলার রি-অ্যাক্টর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র উন্নয়নেও কাজ করছে সংস্থাটি। রুশ ডিজাইনের ক্ষুদ্র মডিউলার রি-অ্যাক্টর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলোর অন্যতম সুবিধা হলো যে, এগুলোর সাহায্যে পানির লবনাক্ততা দূরীকরণ ও তাপ উৎপাদন করা সম্ভব। জর্দানের পারমাণবিক কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্য প্রয়োজনীয় জনশক্তি উন্নয়নে সহায়তা প্রদান করে আসছে রাশিয়া। বর্তমানে রাশিয়ার বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে জর্দানের শতাধিক শিক্ষার্থী ব্যাচেলার, মাস্টার্সসহ বিভিন্ন পোস্ট গ্রাজুয়েট প্রোগ্রামে অধ্যয়ন করছে।
Category: অন্যান্য দেশ
পেট্রোবাংলা’র কর্মচারী ইউনিয়নের নতুন সভাপতি সাহেব আলী এবং সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর
মে ৩০, ২০১৮ বুধবার ০৪:১৯ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
বাংলাদেশ তৈল, গ্যাস ও খনিজ সম্পদ করপোরেশন (পেট্রোবাংলা) কর্মচারী ইউনিয়ন এর নবনির্বাচিত প্রতিনিধিদের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান গত ২৭ মে কাওরান বাজারস্থ পেট্রোসেন্টারের ড. হাবিবুর রহমান অডিটরিয়াম এ অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান আবুল মনসুর মোঃ ফয়েজউল্লাহ, বিশেষ অতিথি হিসেবে পেট্রোবাংলার পরিচালক (প্রশাসন) মোঃ মোস্তফা কামাল, পরিচালক (অর্থ) মোঃ তৌহিদ হাসানাত খান, পরিচালক (পরিকল্পনা) মোঃ আইয়ুব খান চৌধুরী সহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এবং কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।    উল্লেখ্য, গত ১৫ মে অনুষ্ঠিত পেট্রোবাংলা কর্মচারী ইউনিয়নের ২০১৮ সালের সাধারণ নির্বাচন এ সভাপতি পদে শেখ মো: সাহেব আলী মিয়া এবং সাধারণ সম্পাদক পদে মো: জাহাঙ্গীর হোসেন আগামী দুই বছরের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। এছাড়াও সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে শাহ হামিদুর রহমান, সহ-সভাপতি পদে মেজবাহ উদ্দিন, সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে মো: শহীদ্দুল্যাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক পদে খাবিরু আহমেদ, অর্থ সম্পাদক পদে মো: ফিরোজ আহমেদ, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে মো: আজাদ হোসেন এবং নির্বাহী সদস্য পদে মো: মিলন খান নির্বাচিত হয়েছেন।  পেট্রোবাংলা কর্মচারী ইউনিয়ন সাধারণ নির্বাচন এ ৯টি পদের বিপরীতে মোট ২৮ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন এবং ১৯৪ জন ভোট প্রদান করেন।
Category: অন্যান্য
বিশ্বের প্রথম ভাসমান পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র জ্বালানী লোডিংয়ের জন্য প্রস্তুত
মে ২৩, ২০১৮ বুধবার ১১:৫৯ এএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
রাশিয়ায় তৈরী বিশ্বের প্রথম ভাসমান পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র-একাডেমিক লামানোসভ-এ জ্বালানী লোডিংয়ের জন্য সেন্ট পিটার্সবার্গ থেকে গত ১৯ মে মুরমানস্কে আনা হয়েছে। জ্বালানী লোড করার পর বিদ্যুৎ গ্রীডে সংযুক্ত করার জন্য ভাসমান এই বিদ্যুৎকেন্দ্রটি রাশিয়ার দূরপ্রাচ্যের চুকুতকা অঞ্চলের পিভেক শহরে নিয়ে যাওয়া হবে বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে। ভাসমান বিদ্যুৎকেন্দ্রটিতে প্রতিটি ৩৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতাসম্পন্ন দুটি কেএলটি-৪০সি পারমাণবিক চুল্লি রয়েছে। ভাসমান কেন্দ্রটি লম্বায় ১৪৪ মিটার এবং প্রস্থে ৩০ মিটার। পিভেক অঞ্চলে বর্তমানে ৫০ হাজার লোককে বিদ্যুৎ সরবরাহকারী একটি কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র এবং পুরনো পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের স্থলাভিষিক্ত হবে এই ভাসমান পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র। এর ফলে আর্কটিক অঞ্চলে হাজার হাজার টন কার্বন-ডাই-অক্সাইড নির্গমন রোধ করা সম্ভব হবে। মুরমানস্কে আগমন উপলক্ষ্যে এটমফ্লোটের (রুশ পারমাণবিক শক্তি কর্পোরেশন-রোসাটমের একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান) জেটিতে এক জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। রোসাটমের মহাপরিচালক আলেক্সি লিখাচোভ, চুকুতকা অঞ্চলের গভর্নর রোমান কপিনসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন। আলেক্সি লিখাচোভ ভাসমান পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রটিকে রুশ বিজ্ঞানীদের একটি অনন্য প্রকৌশল অর্জন হিসেবে আখ্যায়িত করে বলেন যে, ‘এটি মাঝারি ক্ষমতাসম্পন্ন মোবাইল বিদ্যুৎ ইউনিটের একটি রেফারেন্স, যার চাহিদা আগামী বছরগুলোতে বৃদ্ধি পাবে বলে আশা করা হচ্ছে। উদাহরণস্বরূপ, বিভিন্ন দ্বীপ যেখানে নানাবিধ কারণে কেন্দ্রীয় বিদ্যুৎ সরবরাহ অবকাঠামো নির্মাণ করা কঠিন, সেই সকল স্থানে এই জাতীয় বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের প্রতি আগ্রহ রয়েছে।’ বিভিন্ন পরিবেশবাদী এবং গ্রীণ গ্রুপ এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে। কেননা এর ফলে কয়লার ওপর আর্কটিক অঞ্চলের নির্ভরতা কমবে এবং বিপুল পরিমাণ কার্বন-ডাই-অক্সাইড ও বিষাক্ত বস্তু নিঃসরণজনিত পরিবেশ দূষণ থেকে রক্ষা পাবে ওই অঞ্চলের অত্যন্ত ভঙ্গুর ইকোসিস্টেম। ব্রাইট নিউ ওয়ার্ল্ড অর্গানাইজেশনের নির্বাহী পরিচালক বেন হার্ড তার মন্তব্যে বলেন, ‘সারা বিশ্বে দুরবর্তী জনগোষ্ঠীর জন্য প্রয়োজন সাশ্রয়ী মূল্যে নির্ভরযোগ্য নন-কার্বন এনার্জি। ভাসমান পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র এই চাহিদা পূরণ করতে পারবে।’ একাডেমিক লামানোসভ ২০১৯ সালে বিদ্যুৎ গ্রীডে যুক্ত হবে বলে আশা করা হচ্ছে। এটির আয়ুষ্কাল ৪০ বছর, তবে ৫০ বছর পর্যন্ত বৃদ্ধিযোগ্য। এই জাতীয় মাঝারি আকারের বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো জ্বালানী লোড করার পর এক নাগাড়ে ৩-৫ বছর কাজ করতে সক্ষম। বিদ্যুৎকেন্দ্রটি ডি-কমিশনিং এবং রিসাইকেল করার জন্য রাশিয়ার মূল ভূ-খন্ডে নিয়ে আসা হবে। বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে প্রাপ্ত তেজস্ক্রিয় বর্জ্য ও স্পেন্ট ফুয়েল রাশিয়ার মূল ভূ-খন্ডে অবস্থিত বিশেষ সংরক্ষণাগারে রাখা হবে। রোসাটম ইতোমধ্যে দ্বিতীয় প্রজন্মের ভাসমান বিদ্যুৎকেন্দ্র নিয়ে কাজ করছে। এই বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলোতে দুটি আরআইটিএম-২০০এম রি-অ্যাক্টর থাকবে এবং প্রতিটি উৎপাদন ক্ষমতা হবে ৫০ মেগাওয়াট। এগুলোর আকৃতিও অপেক্ষাকৃত ছোট।  
Category: অন্যান্য দেশ
‘দশম আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি ফোরাম এটমেক্সপো সমাপ্ত’
মে ২০, ২০১৮ রবিবার ০৪:৩৮ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
রুশ রাষ্ট্রীয় পরমাণু শক্তি করপোরেশন রোসাটম আয়োজিত দশম আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি ফোরাম এটমেক্সপো ২০১৮ গত ১৬ মে রাশিয়ার সোচিতে সমাপ্ত হয়েছে। তিন দিনব্যাপি ফোরামে বাংলাদেশসহ রেকর্ড সংখ্যক ৬৮টি দেশ থেকে চার হাজারের অধিক প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করেন। বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ছয় শতের অধিক কোম্পানীর প্রতিনিধিত্ব ছিল এই ফোরামে। ১৩৬টি কোম্পানী ফোরামকালে তাদের পণ্য ও সেবা প্রদর্শন করেন বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়। রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন অংশগ্রহণকারীদের উদ্দ্যেশে এক বাণীতে বলেন, ‘বিগত বছরগুলোতে এই ফোরামটি বিশ্বের বৃহৎ কোম্পানী, সরকারী সংস্থা, বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গ, রাশিয়াসহ বিভিন্ন দেশের শীর্ষস্থানীয় বিশেষজ্ঞদের একত্রিত করতে সক্ষম হয়েছে। আজকে এটি এমন একটি প্ল্যাটফর্ম হয়ে উঠেছে যেখানে উচ্চ পেশাদার পর্যায়ে পরমাণু সেক্টরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আলোচিত হচ্ছে।’ ‘বর্তমান পরিস্থিতিতে বৈশ্বিক অর্থনীতির উন্নয়ন এবং প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষা নির্ভর করছে স্থিতিশীল ও পরিবেশ বান্ধব এনার্জির প্রাপ্তির ওপর। রাশিয়া পরমাণু শক্তির উন্নয়ন, পারমাণবিক শক্তি কেন্দ্রের নির্মাণ ও পরিচালনা, মৌলিক ও ফলিত গবেষণায় নেতৃস্থানীয় ভূমিকা পালন করে আসছে। ব্যাপক আন্তর্জাতিক সহযোগিতাসহ অন্যান্য পদক্ষেপের মাধ্যমে এই সামর্থ্যকে আরো বৃদ্ধি করা প্রয়োজন।’ আন্তর্জাতিক পারমাণবিক শক্তি সংস্থা (আইএইএ) এর মহাপরিচালক ইউকিয়ো আমানো, ওয়ার্ল্ড নিউক্লিয়ার অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট আগনেতা রাইজিং, ওয়ার্ল্ড অ্যাসোসিয়েশন অব নিউক্লিয়ার অপারেটরস্ এর প্রেসিডেন্ট জ্যাকিস রেগাল্ডোসহ অন্যান্যরা অংশগ্রহণ করেন। তারা বর্তমানে পরমাণু শক্তির ক্ষেত্রে গুরুত্ব বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা এবং ভবিষ্যতে পরমাণু শক্তির জন্য যৌথ কার্যক্রমের রূপরেখা নির্ধারণ করেন। ফোরামে বিভিন্ন বিষয়ের ওপর কয়েকটি সেশন এবং ১৬টি গোলটেবিল আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। এবার এটমেক্সপো চলাকালীন বাণিজ্যিকসহ মোট ৩৯টি চুক্তি সই হয়। পরমাণু শিল্পের উন্নয়নে তাৎপর্যপূর্ণ অবদান এবং মানব কল্যাণে পরমাণু শক্তি ব্যবহারের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনের স্বীকৃতিস্বরূপ এবারই প্রথম কয়েকটি প্রতিষ্ঠানকে ‘এটমেক্সপো অ্যাওয়ার্ডস’ প্রদান করা হয়।   
Category: অন্যান্য দেশ
সাড়ে তিন বছর পর জ্বালানি তেলের দাম সর্বোচ্চ
মে ১৬, ২০১৮ বুধবার ০৬:১২ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
সরবরাহ কমার পাশাপাশি বিশ্বের অন্যতম তেল রপ্তানিকারক দেশ ইরানে যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞার আশঙ্কায় বিশ্ববাজারে আবারও বাড়তে শুরু করেছে জ্বালানি তেলের দাম। এ কারণে বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম বেড়ে সাড়ে তিন বছরে সর্বোচ্চ হয়েছে। সংশ্লিষ্টদের আশঙ্কা ইরানের ওপর আমেরিকান নিষেধাজ্ঞায় তেল রপ্তানি কমে যাবে। মঙ্গলবার বিশ্ববাজারে ব্রেন্ট অশোধিত তেলের দাম ৩৭ সেন্ট বেড়ে হয়েছে ব্যারেলপ্রতি ৭৮.৬০ ডলার, যা ২০১৪ সালের নভেম্বরের পর থেকে সর্বোচ্চ দর। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রের হালকা অশোধিত তেলের দর পাঁচ সেন্ট বেড়ে ব্যারেলপ্রতি হয়েছে ৭১.০১ ডলার, যা ২০১৪ সালের নভেম্বরের পর সর্বোচ্চ দাম। বিশ্ববাজারে তেলের চাহিদা বাড়লেও উৎপাদন সেভাবে বাড়ানো হয়নি। এতে গত এক বছরে তেলের দাম বেড়েছে ৭০ শতাংশ। বিশ্ববাজারে তেলের দাম বাড়াতে সৌদি আরবসহ রপ্তানিকারক দেশগুলোর সংগঠন ওপেক এবং রাশিয়া তেল উৎপাদন কমানোর চুক্তি করে। সেই চুক্তির আলোকে সরবরাহ কমায় এখন দাম বাড়ছে। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরানের সঙ্গে করা পরমাণু চুক্তি থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নিয়েছেন এবং ইরানের ওপর অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দিয়েছেন। এতে বাজারে আশঙ্কা তৈরি হয়েছে ইরানের তেল সরবরাহ বন্ধ হলে বিশ্ববাজারে ঘাটতি দেখা দেবে। সূত্র: এএফপি।
Category: অন্যান্য দেশ
‘বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দ্রুত সরবরাহ বৃদ্ধি আইনের মেয়াদ তিন বছর বাড়ছে’
মে ১৪, ২০১৮ সোমবার ১১:৪৪ এএম - স্টাফ করেসপনডেন্ট, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের ২০২১ সাল পর্যন্ত গৃহীত উন্নয়ন পরিকল্পনা দ্রুত বাস্তবায়নের জন্য বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দ্রুত সরবরাহ বৃদ্ধি (বিশেষ বিধান) আইন ২০১০ এর মেয়াদ আবারও বাড়ানো হচ্ছে। প্রচলিত দরপত্র প্রক্রিয়ায় প্রকল্প বাস্তবায়নে দীর্ঘ সময় লাগে। তাই দ্রুত প্রকল্প বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ২০১০ সালে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সরবরাহ বৃদ্ধির বিশেষ বিধান করা হয়। এর আগে দু’বার এ আইনের মেয়াদ বাড়ানো হয়। আগামী অক্টোবরে এর মেয়াদ শেষ হবে। এই বিশেষ বিধানের মেয়াদ এবার তিন বছর বাড়ানো হতে পারে। এর মধ্যেই অর্থ, বাণিজ্য, জনপ্রশাসন ও স্বরাষ্ট্র্র মন্ত্রণালয়ের মতামত নেওয়া হয়েছে। এখন আইন মন্ত্রণালয়ের মতামত নিয়ে প্রস্তাবটি মন্ত্রিসভার বৈঠকে উত্থাপন করা হবে। মন্ত্রিসভায় অনুমোদন পেলে তা পাঠানো হবে জাতীয় সংসদে। এ ব্যাপারে পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক মোহাম্মদ হোসেন বলেন, আগামী অক্টোবরে বর্তমান আইনটির মেয়াদ শেষ হবে। এরপর আরও তিন বছর, অর্থাৎ ২০২১ সালের অক্টোবর পর্যন্ত মেয়াদ বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, এই আইনের আওতায় ভাড়াভিত্তিক দ্রুত বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের কারণেই বিদ্যুৎ খাতের উন্নয়ন গতিশীল করা সম্ভব হয়েছে। ২০০৯ সালে বিদ্যুৎ খাতে যে সংকট  ছিলো তা থেকে বেরিয়ে আসাও সম্ভব হয়েছে। ২০১০ সালে পাস হওয়া আইনটির মেয়াদ ২০১২ সালে শেষ হওয়ার পর আরও দুই বছর, অর্থাৎ ২০১৪ সাল পর্যন্ত বাড়ানো হয়। ২০১৪ সালের অক্টোবরে দ্বিতীয় দফায় চার বছর মেয়াদ বাড়িয়ে ২০১৮ সালের অক্টোবর পর্যন্ত করা হয়। আগামী ১১ অক্টোবর এই মেয়াদও শেষ হচ্ছে। এই আইনের বিশেষ বিধান হলো, ‘পাবলিক প্রকিউরমেন্ট আইন, ২০০৬ বা আপাতত বলবৎ অন্য কোন আইনে যা কিছুই থাকুক না কেন, এই আইনের বিধানাবলী প্রাধান্য পাবে। এই আইনের অধীনকৃত, বা কৃত বলে বিবেচিত কোন কাজ, গৃহীত কোন ব্যবস্থা, প্রদত্ত কোন আদেশ বা নির্দেশের বৈধতা সম্পর্কে কোন আদালতের নিকট প্রশ্ন উত্থাপন করা যাবে না।’
Category: অন্যান্য
এন্টারপ্রাইজ রিসোর্স প্লানিং উন্নত বাংলাদেশ গড়তে কার্যকর অবদান রাখবেঃ বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী
মে ০৯, ২০১৮ বুধবার ০৯:০৩ পিএম - স্টাফ করেসপনডেন্ট, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
সমন্বিত এন্টারপ্রাইজ রিসোর্স প্লানিং উন্নত বাংলাদেশ গড়তে কার্যকর অবদান রাখবে বলে মনে করেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। বুধবার বিদ্যুৎ ভবনে ‘ইনোভেশন শোকেসিং’এর সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা তিনি। তিনি বলেন, বিদ্যুৎ উৎপাদন, বিতরণ, সঞ্চালন ও অফিস ব্যবস্থাপনার মধ্যে সমন্বয় করে এন্টারপ্রাইজ রিসোর্স প্লানিং (ইআরপি) করতে হবে। বিদ্যমান সিস্টেম আপডেট করে চাহিদা ও যোগান মনিটরিং করা প্রয়োজন। প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়িয়ে চাহিদা-যোগানের ভারসাম্য করা গেলেই আগামী তিন বছরের মধ্যে বিদ্যুৎ বিভাগ পেপারলেস অফিস হবে। সে দিকেই যাচ্ছে বিদ্যুৎ বিভাগ। তিনি বলেন, আমাদের সকল উদ্যোগের সাথে জনসম্পৃক্ততা বাড়ানো প্রয়োজন। উদ্ভাবনী কাজের মাধ্যমে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারিদের জবাবদিহিতা ও সেবার মান বাড়বে। প্রযুক্তির মাধ্যমে সেবা সহজীকরণ এবং মানুষের দোরগোড়ায় সেবা দ্রুত ও সহজতরভবে পৌঁছানো সম্ভব। তাই দ্রুততার সাথে প্রযুক্তির ব্যবহার ও প্রয়োগ বাড়াতে হবে। সরাসরি নাগরিক সেবা বৃদ্ধি এবং দাপ্তরিক ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন নিয়ে ইনোভেশন শোকেসিং এ ৪০ টি উদ্ভাবনী উদ্যোগ এর মধ্যে ১৬টি উদ্যোগকে পাইলট করা হয়। যার মধ্যে পাইলট উদ্যোগ ১৩টি সম্পন্ন হয়েছে। বিদ্যুৎ বিভাগের কেন্দ্রীয় কমপ্লেইন ও ফিডব্যাক ম্যানেজমেন্ট সিষ্টেম উদ্যোগটি শোকেসিং এর মাধ্যমে দেশব্যাপী স্কেলআপের জন্য চিহ্নিত করা হয়েছে। বিদ্যুৎ সচিব ড. আহমেদ কায়কাউস এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক মো. আবুল কালাম আজাদ, মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) এন এম জিয়াউল হক ও বিদ্যুৎ বিভাগের প্রধান ইনোভেটিভ কর্মকর্তা অতিরিক্ত সচিব মোছাঃ মাকছুদা খাতুন বক্তব্য রাখেন।  
Category: অন্যান্য
‘মহেশখালীতে ১,৩২০ মেগাওয়াটের আরেকটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র হচ্ছে’
মে ০৬, ২০১৮ রবিবার ১১:২৮ পিএম - স্টাফ করেসপনডেন্ট, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
কক্সবাজারের মহেশখালীতে ১,৩২০ মেগাওয়াটের কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের লক্ষ্যে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (বিপিডিবি) ও চায়না হুয়াদিয়ান হংকং কোম্পানি লিমিটেড (সিএইচডিএইচকে) জয়েন্ট ভেঞ্চার কোম্পানী গঠন করতে চুক্তি সই করেছে। রোববার রাজধানীর বিদ্যুৎ ভবনে বিপিডিবি’র পক্ষে এর সচিব মিনা মাসুদ উজ্জামান এবং চীনের সিএইচডিএইচকে এর ভাইস প্রেসিডেন্ট ওয়াং ঝিহাও চুক্তিতে সই করেন। চুক্তি অনুযায়ী, চীনা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যৌথ অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে ১,৩২০ মেগাওয়াট ক্ষমতার একটি বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করবে বিপিডিবি। এজন্য আগামী ৩০ কর্ম দিবসের মধ্যে উভয় পক্ষের ৫০ শতাংশ করে শেয়ারের ভিত্তিতে যৌথ কোম্পানি গঠন করা হবে। কোম্পানি গঠনের পর আগামী ৪৮ মাস থেকে ৫৪ মাসের মধ্যে মহেশখালীতে ২০০ একর জমির ওপর নির্মিত হবে ৬৬০ মেগাওয়াটের দুটি ইউনিট। অনুষ্ঠানে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, দ্রুত আধুনিক বাংলাদেশ গড়তে প্রয়োজন নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ। বিদ্যুৎ উৎপাদনে যথাসময়ে লক্ষ্য পূরণ হলেও সঞ্চালন ও বিতরণ ব্যবস্থার আরো উন্নয়ন প্রয়োজন। ন্যাশনাল লোড ডিসপাচ সেন্টার আধুনিক করা হচ্ছে। গ্রাহক সেবার মান বাড়ানোর জন্য বিতরণ সংস্থাগুলোর মধ্যে সমন্বয় বাড়ানো হয়েছে বলে জানান তিনি। ভবিষ্যতে কক্সবাজারের মহেশখালীতে বিদ্যুৎ উৎপাদনের একটি বড় হাব গড়ে তোলা হবে বলে আশা করেন প্রতিমন্ত্রী। অনুষ্ঠানে বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব ড. আহমেদ কায়কাউস, বিপিডিবি’র চেয়ারম্যান প্রকৌশলী খালেদ মাহমুদ ও চায়না হুয়াদিয়ান কোম্পানির প্রেসিডেন্ট ফাং ঝেং এবং চীনের রাষ্ট্রদূত ঝাং ঝু বক্তব্য রাখেন। 
Category: বিদ্যুৎ
‘বাংলাদেশ পাওয়ার ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউট এ প্রশিক্ষণ কর্মসূচি উদ্বোধন’
মে ০৬, ২০১৮ রবিবার ০৬:৪৫ এএম - স্টাফ করেসপনডেন্ট, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
সাবলীলভাবে দ্রুত সেবা দিতে প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়ানোর প্রতি তাগিদ দিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। তিনি বলেন, আর্টিফিসিয়াল ইন্টিলেজেন্স কিভাবে আরো বেশি বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে কাজে লাগানো যায় তা নিয়ে গবেষণা এখন সময়ের দাবি। দক্ষ ও নিবেদিতপ্রাণ কর্মী ছাড়া কোন প্রতিষ্ঠানই উন্নতি করতে পারে না। দক্ষতা বৃদ্ধিতে প্রশিক্ষণের কোন বিকল্প নেই। শনিবার ঢাকায় বিদ্যুৎ ভবনে বাংলাদেশ পাওয়ার ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউট (বিপিএমআই) এর প্রথম প্রশিক্ষণ কর্মসূচি ‘প্রজেক্ট ফরমুলেশন, ইমপ্লিমেন্টেশন, মনিটরিং অ্যান্ড ইভালুয়েশন’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, আইআইটি, এআইটি  বা এমআইটি এর মত আন্তর্জাতিক মানের প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান গড়ার লক্ষ্যে বাংলাদেশ পাওয়ার ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউট গঠন করা হয়েছে। ঢাকার অদূরে কেরাণীগঞ্জে ২৫ একর জমি নিয়ে সম্পূর্ণ আবাসিক এ প্রতিষ্ঠান গড়া হচ্ছে। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিভাগের আওতাধীন দপ্তর-আধিদপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারিরা যাতে  খোলা মন নিয়ে জনকল্যানে চিন্তা-ভাবনা করতে পারে, সেভাবেই তাদের গড়ার উদ্যোগ অব্যাহত রাখা হয়েছে। বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব ডঃ আহমদ কায়কাউস এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে বাংলাদেশ পাওয়ার ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউট এর রেক্টর ও অতিরিক্ত সচিব মোঃ মাহবুব-উল-আলম, বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ ও পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক মোহাম্মদ হোসেন বক্তব্য রাখেন।
Category: অন্যান্য
এলএনজি’র ব্যবহারে সতর্ক হওয়ার পরামর্শ প্রতিমন্ত্রীর
মে ০৩, ২০১৮ বৃহস্পতিবার ১০:১৬ পিএম - স্টাফ করেসপনডেন্ট, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস বা এলএনজি এর দাম দেশীয় প্রাকৃতিক গ্যাসের চেয়ে বেশি হবে বিধায় এই গ্যাস ব্যবহারে অধিক সর্তক হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। বৃহস্পতিবার ঢাকা ক্লাবে ফোরাম ফর এনার্জি রিপোর্টার্স বাংলাদেশ বা এফইআরবি এর আয়োজনে ‘এলএনজি ইমপোর্ট: অপরচুনিটি অ্যান্ড চ্যালেঞ্জস’ শীর্ষক এক সেমিনারে এ কথা বলেন তিনি। তিনি বলেন, “কষ্ট অব অপরচুনিটি যেখানে বেশি সেখানেই এই দামী গ্যাস ব্যবহার করা হবে। বর্তমানে প্রতি ঘনমিটার গ্যাস উৎপাদন খরচ ৯ টাকা ২০ পয়সা হলেও সরকার গড়ে ৭ টাকা ৩৯ পয়সায় বিক্রয় করে। এলএনজি সরবরাহ শুরু হলে গ্যাসের মূল্য কিছুটা হয়তো বাড়বে যা বিইআরসি নির্ধারণ করবে।” এলএনজি’র পাশাপাশি এলপিজি ও জ্বালানি তেল সরবরাহ স্বাভাবিক রাখার উপর গুরুত্ব দেয়া হবে বলে জানান তিনি। প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিদ্যুৎ সরবরাহে বিদ্যুৎ বিভাগ দক্ষতার পরিচয় দিলেও গ্যাস সংকট সমাধানে জ্বালানি খাতে  পেশাদারিত্বের ঘাটতি আছে। রাষ্ট্রীয় সংস্থা বাপেক্সকে কার্যকর ও দক্ষ করতে মন্ত্রণালয় উদ্যোগ নিয়েও ব্যর্থ হয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি। গত ২৪ এপ্রিল দেশে প্রথমবারের মতো এলএনজিবাহী ভাসমান জাহাজ বাংলাদেশের মহেশখালী দ্বীপাঞ্চলে এসে পৌঁছেছে। চলতি মাসের শেষ দিকে এই গ্যাস জাতীয় সঞ্চালন লাইনে যুক্ত হলে আমদানি মূল্য সমন্বয় করতে দাম বাড়ানোর প্রয়োজন  হবে বলে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে আগেই ইঙ্গিত দেওয়া হয়। বুয়েটের অধ্যাপক ম তামিম বলেন, এলএনজি আমদানি নতুন সুযোগ সৃষ্টি করবে বিশেষত গ্যাসচালিত বিদ্যুৎ কেন্দ্র ও শিল্প-কারখানার জন্য। ভবিষ্যতে তেলভিত্তিক বিদ্যুৎ স্থাপন না করে এলএনজি দিয়ে তা চালানোর পরামর্শ দেন তিনি। তেলচালিত বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলোর কারণে বিদ্যুতের মূল্যে বেড়ে যাচ্ছে। বর্তমানে ৩০ শতাংশ বিদ্যুৎ উৎপাদন হয় তেলভিত্তিক কেন্দ্রগুলো থেকে যা ক্রমান্বয়ে ১০ শতাংশে নামিয়ে আনা উচিত বলে মনে করেন তিনি। পেট্রোবাংলার সাবেক চেয়ারম্যান মোক্তাদির আলী বলেন,   জ্বালানি খাতের শৃঙ্খলা আনতে সঞ্চালন পাইপ লাইনগুলো নিয়ে এখনই সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনা গ্রহণ করা প্রয়োজন। দেশীয় গ্যাস সম্পদকে কাজে লাগাতে বাপেক্সকে আরো শক্তিশালী করতে হবে। ক্যাবের জ্বালানি উপদেষ্টা প্রফেসর শামসুল আলম বলেন, জ্বালানি খাতে সীমাহীন চুরি ও দুর্নীতি চলছে। এই দুর্নীতি থামানো না গেলে এই খাত তলাবিহীন ঝুড়িতে পরিণত হবে। এরকম দুর্নীতিগ্রস্ত খাতে নতুন করে অধিকমূল্যের এলএনজি যুক্ত হলে তা কী সুযোগ সৃষ্টি করবে, নাকি নতুন চ্যালেঞ্জ হবে সেই প্রশ্ন রাখেন তিনি। বাসাবাড়িতে ১৬ শতাংশ গ্যাস সরবরাহ দেখানো হচ্ছে। অথচ সেখানে ৫ শতাংশের বেশি গ্যাস ব্যবহার হয়না। একইভাবে  শিল্প-কারখানা ও সিএনজি স্টেশনে গ্যাস চুরি হচ্ছে। এই চুরিগুলো ঠেকানো গেলে যে অর্থ সাশ্রয় হবে তা দিয়ে দৈনিক ৫০০ মিলিয়ন ঘনফুট এলএনজি জাতীয় সঞ্চালন লাইনে যুক্ত করা সম্ভব। জ্বালানি বিশেষজ্ঞ সালেক সুফি বলেন, জ্বালানি খাতের অদক্ষতার উদাহরণ হিসেবে এলএনজি আমদানির দীর্ঘসূত্রিতার কথা উল্লেখ করে বলেন, ২০১০ সালে সিদ্ধান্ত হয়েছিল এলএনজি আনার যা ২০১৩ সালে আসবে বলে ধরা হয়েছিল। তখনও যদি চুক্তি করা যেতো তাহলে অনেক কম দামে এলএনজি আনা যেতো। সুফি বলেন, ২০০৯ সালে বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার সময় গ্যাসের উৎপাদন ছিল ১৭০০ মিলিয়ন ঘনফুট, ঘাটতি ছিল ৫০০ মিলিয়ন ঘনফুট। এখন উৎপাদন ২৭০০ মিলিয়ন ঘনফুট হলেও ঘাটতি থাকছে এক হাজার মিলিয়ন ঘনফুট। তাহলে এতো গ্যাস যাচ্ছে কোথায়? পেট্রোবাংলাসহ জ্বালানি খাতে দক্ষ ও কর্মনিষ্ঠ কর্মকর্তা নিয়োগ দেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।    
Category: গ্যাস
বাংলা ট্র্যাক গ্রুপ আরো ২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু করেছে
মে ০২, ২০১৮ বুধবার ১২:৫৫ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
কুমিল্লার দাউদকান্দিতে স্থাপিত একটি নতুন বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে জাতীয় গ্রিডে ২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ যোগ করেছে বাংলা ট্র্যাক গ্রুপের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান বাংলা ট্র্যাক পাওয়ার ইউনিট-১ লিমিটেড।   গত ২৪ এপ্রিল থেকে এ বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হয় বলে বাংলা ট্র্যাক গ্রুপের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। এর আগে গত ১৬ এপ্রিল যশোরের নওয়াপাড়ায় স্থাপিত ১০০ মেগাওয়াটের আরেকটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র চালু করে বাংলা ট্র্যাক পাওয়ার ইউনিট-২ লিমিটেড। এ নিয়ে বাংলা ট্র্যাক পাওয়ার তাদের ইউনিট-১ ও ইউনিট-২ থেকে মোট ৩০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ গ্রিডে যোগ করল। বিদ্যুতের ঘাটতি পূরণে বাংলা ট্র্যাক গ্রুপের কার্যক্রমের বিষয়ে প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যন মোহাম্মাদ আমিনুল হক বলেন, ‘জাতীয় গ্রিডে আরো ২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে পেরে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত। এ নিয়ে আমরা জাতীয় গ্রিডে মোট ৩০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহ করছি।’
Category: বিদ্যুৎ
‘শিল্পের পর এবার আবাসিকেও গ্যাস সংযোগ দেওয়া হচ্ছে’
এপ্রিল ২৮, ২০১৮ শনিবার ০৯:৫৭ পিএম - স্টাফ করেসপনডেন্ট, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
শিল্পের পর এবার আবাসিকেও গ্যাসের সংযোগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। শনিবার ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী  বলেন, সরকারের সিদ্ধান্ত হলো আবাসিক খাতে এ মুহূর্তে সম্পূর্ণভাবে নতুন সংযোগ নয়। তবে যারা ইতিমধ্যে সংযোগের জন্য আবেদন করে ব্যাংকে টাকা জমা দিয়েছেন তাদেরকে দেয়া হবে। এছাড়া যেসব ভবনের কিছু ফ্ল্যাটে সংযোগ আছে এবং কিছু ফ্লাটে নেই সেগুলোর বাকিগুলোতে সংযোগ দেয়া হবে বলে জানান তিনি। তিনি আরো বলেন, শিল্পে গ্যাস সংযোগে আর কোনো বাধা নেই। যেখানে শিল্প এলাকা সেখানেই গ্যাস সংযোগ দেয়া হবে। বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা জানান, আগামী মে মাসের শেষ দিকে জাতীয় গ্রীডে আমদানিকৃত এলএনজি গ্যাস যুক্ত হবে। এতে গ্যাসের বিদ্যমান সংকট কিছুটা কমবে। সারাদেশে বিদ্যুৎ সংযোগের সংখ্যাও বেড়েছে। শিল্পে গ্যাস সংযোগে এতদিন যে নিয়ন্ত্রণ ও বাধা ছিল তা উঠিয়ে নেয়া হয়েছে। এবার আবাসিক খাতে নিয়ন্ত্রিতভাবে নতুন সংযোগ দেয়া হবে। এছাড়া আনুষ্ঠানিকভাবে নতুন সংযোগ বন্ধ করে দেয়ার আগে অনেক গ্রাহক ব্যাংকে টাকা জমা দিয়ে ডিমান্ড নোটও পেয়েছে। কয়েক বছর ধরে এ ধরনের গ্রাহকদেরকে বৈধ সংযোগ দেয়ার উপায় খোঁজা হচ্ছিল। পেট্রোবাংলার আওতাধীন ছয়টি সরকারি কোম্পানি গ্রাহক পর্যায়ে গ্যাস বিতরণ করে। এর মধ্যে তিতাস গ্যাস সঞ্চালন ও বিতরন কোম্পানিই বিতরণ করে প্রায় ৬০ শতাংশ। তিতাস গ্যাস কোম্পানি ঢাকা ছাড়াও নারায়ণগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, গাজীপুর, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, জামালপুর, শেরপুর, নরসিংদী, নেত্রকোনা ও কিশোরগঞ্জ জেলায় গ্যাস সরবরাহ করছে। দেশের ৩৮ লাখ আবাসিক গ্যাস গ্রাহকের মধ্যে প্রায় সাড়ে ২৭ লাখ ১৮ হাজার গ্রাহকই তিতাসের।
Category: গ্যাস
    সাম্প্রতিক খবর   সর্বাধিক পঠিত
‘৪০০ কেভি বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইন নির্মাণে পদ্মা নদী ক্রসিং এর কাজ শুরু হচ্ছে’
‘আগামী ৮ দিনের মধ্যে এলএনজি জাতীয় গ্রিডে যোগ হবে’
‘এলএনজি সরবরাহে প্রতি ঘনমিটারে ১৮ পয়সা সঞ্চালন চার্জ বৃদ্ধি চায় জিটিসিএল’
‘এলএনজিবাহী জাহাজ চলাচলে সমুদ্র এলাকায় মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা চায় পেট্রোবাংলা’
‘২০১৮-১৯ অর্থবছরে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে ২৪ হাজার ৯২১ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব’
‘স্থলভাগে ১০৮টি গ্যাস কূপ খনন করা হবে’
শেভরন বাংলাদেশের নতুন প্রেসিডেন্ট নীল মেনজিস
ক্ষুদ্র মডিউলার রি-অ্যাক্টর ক্ষেত্রে রুশ-জর্দান সহযোগিতা
পেট্রোবাংলা’র কর্মচারী ইউনিয়নের নতুন সভাপতি সাহেব আলী এবং সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর
‘এক মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের চেয়ে দরকার এক মেগাওয়াট সাশ্রয়’
ডিপিডিসি’র নতুন ব্যবস্থাপনা পরিচালক হলেন প্রকৌশলী বিকাশ দেওয়ান
পেট্রোবাংলার নতুন চেয়ারম্যান আবুল মনসুর মো. ফয়জুল্লাহ
‘পিডিবি’র বড় অর্জন দেশের ৭৬ শতাংশ এলাকা এখন বিদ্যুতের আওতায়’
পুরনো তিন বিদ্যুৎকেন্দ্র আলাদাভাবে পাওয়ার হাবে রূপান্তর হচ্ছে
বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানীর নতুন ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাবিব উদ্দিন
পিডিবি’র নিয়ন্ত্রণাধীন বিতরণ এলাকা নিয়ে কোম্পানি গঠনের বিরুদ্ধে আবারও আন্দোলন
প্রসঙ্গঃ রামপাল কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র-পরিবেশ ও প্রতিবেশের উপর প্রভাব
বিপিডিবিকে হোল্ডিং কোম্পানীতে রূপান্তর করতে চায় সরকার
‘রমজানে ১০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হবে’
‘এলপি গ্যাস অপারেশনাল লাইসেন্সিং নীতিমালা প্রণয়ন করেছে সরকার’
    FOLLOW US ON FACEBOOK


Explore the energynewsbd.com
হোম
এনার্জি ওয়ার্ল্ড
মতামত
পরিবেশ
অন্যান্য
এনার্জি বিডি
গ্রীণ এনার্জি
সাক্ষাৎকার
বিজনেস
আর্কাইভ
About Us Contact Us Terms & Conditions Privacy Policy Advertisement Policy

   Editor & Publisher: Aminur Rahman
   Copyright @ 2015-2018 energynewsbd.com
   All Rights Reserved | Developed By: Jadukor IT