‘বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিষয়ে তরুণ ও প্রতিষ্ঠিত গবেষকদের উদ্বুদ্ধকরণে নতুন প্ল্যাটফর্ম- ইপিআরসি’  

    এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
    প্রকাশিত: ডিসেম্বর ১০, ২০১৬ শনিবার ১২:১৬ পিএম BdST     ক্যাটাগরি: সাক্ষাৎকার

দেশে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের কর্মকান্ড দিনদিন বাড়ছেই অথচ এই খাতের উন্নয়ন ও উৎকর্ষে গবেষণা কার্যক্রম তুলনামূলক কম। বর্তমান সরকার বিষয়টি অনুধাবন করে গঠন করেছে বাংলাদেশ এনার্জি অ্যান্ড পাওয়ার রিসার্চ কাউন্সিল (ইপিআরসি)।

ডঃ আহমেদ কায়কাউস, সরকারের একজন উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা হলেও গবেষণার প্রতি তাঁর রয়েছে নিবিড় আগ্রহ।

বিসিএস (প্রশাসন) ৮৪ ব্যাচের এই কর্মকর্তা সম্প্রতি ভারপ্রাপ্ত সচিব হিসেবে পদোন্নতি পান এবং একই সঙ্গে ইপিআরসি এর চেয়ারম্যান হিসেবেও দায়িত্ব গ্রহণ করেন।

২০১৪ সালের মে মাসে বিদ্যুৎ বিভাগে অতিরিক্ত সচিব হিসেবে যোগ দেন আহমেদ কায়কাউস। বিগত দুই বছরে এই বিভাগের কার্যক্রমে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করায় ইপিআরসি এর প্রথম চেয়ারম্যান হিসেবেও নিয়োগ পান তিনি।

এনার্জি অ্যান্ড পাওয়ার রিসার্চ কাউন্সিল গঠন, এর ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা ও বাস্তবায়ন নিয়ে এক একান্ত সাক্ষাৎকারে এনার্জিনিউজবিডি ডটকম এর সম্পাদক আমিনূর রহমানকে বিস্তারিতভাবে বলেছেন আহমেদ কায়কাউস

এনার্জিনিউজবিডি ডটকম: বাংলাদেশ এনার্জি অ্যান্ড পাওয়ার রিসার্চ কাউন্সিল (ইপিআরসি) গঠনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য কি?

আহমেদ কায়কাউস: বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে ক্রমবর্ধমান ব্যাপক চাহিদা পূরণকল্পে গবেষণা ও উন্নয়নের মাধ্যমে দেশে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের উৎকর্ষতা আনয়ন ও জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণে বাংলাদেশ জ্বালানি ও বিদ্যুৎ গবেষণা কাউন্সিল আইন-২০১৫ প্রণয়ন করা হয়।

উক্ত আইনের মাধ্যমে ২০১৫ সালের ২ ফেব্রুয়ারি ইপিআরসি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিষয়ক প্রায়োগিক গবেষণার ক্ষেত্রে সমন্বয় সাধন, আর্থিক সহায়তা প্রদান, উদ্বুদ্ধকরণ, বিদ্যুৎ ও জ্বালানির বহুমূখী ব্যবহারের ক্ষেত্র চিহ্নিতকরণ, দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা প্রণয়নের লক্ষ্যে উক্ত খাতের গবেষণা, গবেষণার মাধ্যমে প্রযুক্তির উন্নয়ন ও উৎকর্ষতা সাধন, নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবন, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন গবেষক ও বিজ্ঞানীদের গবেষণা কার্যক্রমে সম্পৃক্তকরণ ইপিআরসি’র অন্যতম লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য।

এনার্জিনিউজবিডি ডটকম: দেশে অন্যান্য খাতেও রিসার্চ কাউন্সিল রয়েছে তাদের থেকে ইপিআরসি’র পার্থক্য কি এবং এই প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠার পেছনের ইতিহাস সম্পর্কে বলুন।

আহমেদ কায়কাউস: দেশের অন্যান্য খাতের গবেষণা কাউন্সিলের সাথে ইপিআরসি’র  মৌলিক তেমন কোন পার্থক্য নেই। তবে জ্বালানি ও বিদ্যুৎ বিষয়ক প্রায়োগিক গবেষণার ক্ষেত্রে ইপিআরসি বাংলাদেশের একমাত্র প্রতিষ্ঠান।

জ্বালানি ও বিদ্যুৎ গবেষণা কার্যক্রম প্রযুক্তিগত দিক থেকে উচ্চমান সম্পন্ন । উক্ত গবেষণা কার্যক্রম উৎকর্ষতার সাথে পরিচালনার জন্য ব্যাপক আর্থিক ও উচ্চমান সম্পন্ন প্রযুক্তির ব্যবহার এবং কারিগরি ব্যবহারিক জ্ঞানের আবশ্যকতা রয়েছে।

ইপিআরসি উক্ত গবেষণা কার্যক্রমে প্রয়োজনীয় আর্থিক ও কারিগরি সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। যার ফলে এ গবেষণা প্রতিষ্ঠানটি অন্যান্য অনেক রিসার্চ কাউন্সিল থেকে কিছুটা ব্যতিক্রম।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রেরণায় উদ্বুদ্ধ হয়ে ওনার বিদ্যুৎ, জ্বালানি এবং খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে প্রযুক্তিগত উৎকর্ষতা সাধনের লক্ষ্যে উহার উপর ব্যাপকভিত্তিক প্রায়োগিক গবেষণার প্রয়োজন অনুভব করেন।

এরই প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ জ্বালানি ও বিদ্যুৎ গবেষণা কাউন্সিল আইন-২০১৫ প্রণীত হয়। এছাড়া সরকারের ভিশন-২০২১ এর দীর্ঘ মেয়াদী কৌশলে ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত করার লক্ষ্যে  জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণে বিশেষ গুরুত্ব আরোপ করা হয়।

যাতে উল্লেখ রয়েছে “Reaching middle income status by 2021, while ensuring energy security calls for adoption of a coherent and long-term approach to managing the demand and supply of energy resources.” উক্ত লক্ষ্য অর্জনকল্পে জ্বালানি ও বিদ্যুৎ ক্ষেত্রে ব্যাপক প্রায়োগিক গবেষণা কার্যক্রম আবশ্যক।

তাই ভিশন-২০২১ এ বর্ণিত দীর্ঘ মেয়াদী জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে জ্বালানি ও বিদ্যুৎ গবেষণা কার্যক্রমকে ফলপ্রসূভাবে এগিয়ে নিতে এবং গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে ইপিআরসি।

এনার্জিনিউজবিডি ডটকম: ২০১৫ সালে আইন প্রণয়ন এবং কাউন্সিল গঠনের পর কতদূর এগিয়েছে এই প্রতিষ্ঠানটি।

আহমেদ কায়কাউস: প্রতিষ্ঠার অল্প সময়ের মধ্যে ইপিআরসি বেশকিছু কার্যক্রম বাস্তাবায়ন করেছে। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য কয়েকটি কার্যক্রম হলো-

Bangladesh Council of Scientific & Industrial Research(BCSIR)কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন গবেষণা প্রকল্প “Design and Optimization of Parabolic Reflection Type Solar Cooker for Indoor Application” এ অর্থায়ন।

এছাড়া Bangladesh Bureau of Statistics (BBS) এর “Opinion Survey on Power Supply to Households” শীর্ষক জরিপ প্রকল্পে অর্থায়নসহ উক্ত প্রকল্প যৌথভাবে বাস্তবায়ন হচ্ছে।

Infrastructure Development Company Ltd (IDCOL) এবং ইপিআরসি’র যৌথ উদ্যোগে গবেষণা প্রকল্প গ্রহণ ও এতে অর্থায়নের বিষয়ে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

উক্ত সিদ্ধান্তের আলোকে IDCOL কর্তৃক প্রস্তাবিত “Energy Utilization of Solar PV Array of  Solar Irrigation and Develop Sustainable Business Model with Remote Monitoring and Payment Gateway for the Off-grid Areas of Bangladesh” শীর্ষক প্রকল্পটি গৃহীত হয়েছে।

বিদ্যুৎ ও জ্বালানির উন্নয়ন, সংরক্ষণ এবং উহার দক্ষ ব্যবহার সংক্রান্ত গবেষণা ও উন্নয়ন কার্যক্রমে উৎসাহ প্রদানকল্পে কাউন্সিল ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় এর সাথে পৃথকভাবে গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করা হয়।

এছাড়া সম্প্রতি “Mitigating Challenges in Energy and Power through Research” এবং “Energy Status in Bangladesh Advances in Renewable Energy Field” শীর্ষক কর্মশালার আয়োজন করা হয়।

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সংশ্লিষ্ট তরুণ গবেষক এবং উদ্যোক্তাদের গবেষণা কার্যক্রমে কারিগরি ও আর্থিক সহযোগিতা প্রদান এবং ইপিআরসি’র বিভিন্ন কার্যক্রমে তরুণ গবেষকদের সক্রিয় অংশগ্রহণ নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে ইপিআরসি এবং ইঞ্জিনিয়ারিং স্টুডেন্ট’স এসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (এসাব) এর মধ্যে সম্প্রতি একটি সমঝোতা স্মারক সই হয়।

ইতোমধ্যে মাননীয় বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ ইপিআরসি’র অফিসিয়াল ওয়েবসাইট এবং ফেইজবুক পেইজ উদ্বোধন করেছেন।

এছাড়া International Center for Climate Change and Development (ICCCD), IUB এর সহযোগিতায় বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সংক্রান্ত তথ্য উপাত্ত সম্বলিত একটি ব্যাপকভিত্তিক ডাটাবেজ প্রস্তুতকরণের কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে।

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিষয়ে প্রায়োগিক গবেষণাকে উৎসাহ প্রদানের লক্ষ্যে ইপিআরসি গবেষণারত বুয়েটের শিক্ষার্থী এবং এসাব সদস্যদের মধ্য থেকে থিসিস-প্রজেক্ট প্রস্তাব মূল্যায়নপূর্বক প্রয়োজনীয় সংখ্যক শিক্ষার্থীকে গবেষণা অনুদান প্রদান করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

এনার্জিনিউজবিডি ডটকম: ইঞ্জিনিয়ারিং স্টুডেন্ট’স এসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (এসাব) এর সাথে ইপিআরসি’র সমঝোতা স্মারক সই  সম্পর্কে বিস্তারিত বলুন।

আহমেদ কায়কাউস: তরুণ প্রজন্মকে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিষয়ক গবেষণা কার্যক্রমে উৎসাহ প্রদানের লক্ষ্যে বাংলাদেশ জ্বালানি ও বিদ্যুৎ গবেষণা কাউন্সিল এবং ইঞ্জিনিয়ারিং স্টুডেন্টস এসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ এর মধ্যে সম্প্রতি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়।

উক্ত সমঝোতা স্মারকে যেসব বিষয়সমূহ অন্তর্ভুক্ত রয়েছে তা হলো-

(ক) বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের যে সকল শিক্ষার্থী জ্বালানি ও বিদ্যুৎ বিষয়ক গবেষণা কার্যক্রমে সম্পৃক্ত তাদের সাথে সংযোগ স্থাপন ।

(খ) সম্ভাব্য জ্বালানি সংকট নিরসনকল্পে টেকসই প্রযুক্তি উদ্ভাবনের লক্ষ্যে যৌথভাবে সেমিনার, কর্মশালা, প্রশিক্ষণ, সামিট ইত্যাদির আয়োজন।

(গ) বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের জ্বালানি ও বিদ্যুৎ সংক্রান্ত Innovative Project-Thesis কার্যক্রমে ইপিআরসি কর্তৃক “Youth Innovation Small Grant” প্রদান।

(ঘ) এসাব সদস্যদের মধ্যে থেকে জ্বালানি ও বিদ্যুৎ বিষয়ে তরুণ গবেষকগণ যাতে বিভিন্ন স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণাগার ব্যবহার করতে পারে সেলক্ষ্যে ইপিআরসি’র পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা প্রদান।

এনার্জিনিউজবিডি ডটকম: ইপিআরসি’র অর্গানোগ্রামে কত সংখ্যক জনবল থাকছে? আইন অনুযায়ী প্রধান কার্যালয় ঢাকায় থাকবে, তবে দেশের অন্য কোথাও এর শাখা কার্যালয় কার্যালয় চালুর পরিকল্পনা আছে কি?

আহমেদ কায়কাউস: ইপিআরসি’র প্রস্তাবিত অর্গানোগ্রামে ১৩১ জন জনবল রয়েছে। আইন অনুযায়ী প্রধান কার্যালয় ঢাকায় অবস্থিত। দেশের অন্য কোথাও এর কোন শাখা কার্যালয় নেই তবে পরবর্তীতে কাউন্সিল দেশের যে কোন স্থানে শাখা কার্যালয় স্থাপন করতে পারবে। 

এনার্জিনিউজবিডি ডটকম: গবেষণাধর্মী এই প্রতিষ্ঠানটি এ পর্যন্ত কি কি পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে এবং তার বাস্তবায়ন কতটুকু হয়েছে?

আহমেদ কায়কাউস: ইপিআরসি ইতোমধ্যে বিভিন্ন স্বল্প ও মধ্য মেয়াদী পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। এর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি পরিকল্পনা হলো-

(ক) শক্তি ইনস্টিটিউট, University of Hawai এবং Department of Glass and Ceramic Engineering, BUET থেকে কতিপয় গবেষণা প্রস্তাব পাওয়া গেছে।যা পর্যালোচনা করে কাউন্সিল কর্তৃক অর্থায়ন এবং যৌথভাবে বাস্তবায়নের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এছাড়া জ্বালানি ও বিদ্যুৎ বিষয়ক অন্যান্য প্রায়োগিক গবেষণা কার্যক্রমে প্রয়োজনীয় আর্থিক কারিগরি সহায়তা প্রদান করা হবে।

(খ) বিদ্যুৎ ও জ্বালানি ক্ষেত্রে প্রযুক্তিগত উৎকর্ষতা আনয়ন ও জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিতকল্পে প্রায়োগিক গবেষণা কার্যক্রমে দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের উদ্বুদ্ধকরণের নিমিত্তে কতিপয় কর্মশালা আয়োজনের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।

(গ) বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিষয়ক গবেষণা কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার লক্ষ্যে এ সংক্রান্ত একটি সমন্বিত ডাটাবেজ প্রস্তুত করার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।

(ঘ) কাউন্সিল গবেষণারত বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের জন্য আন্ত:বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণাগার ব্যবহারের সুযোগ নিশ্চিতকল্পে প্রয়োজনীয়তা সহযোগিতা প্রদান করবে।

(ঙ) বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিষয়ক সম্ভাব্য বিভিন্ন উদ্ভাবনী প্রকল্প পরিদর্শন এবং উক্ত প্রকল্প সমূহ পর্যালোচনাপূর্বক তা যৌথভাবে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কাউন্সিল কর্তৃক প্রয়োজনীয় অর্থায়ন।

(চ) বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সংশ্লিষ্ট পরীক্ষাগার ও গবেষণাগার স্থাপন করা।

(ছ) বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সংশ্লিষ্ট গবেষকগণের সক্ষমতা বৃদ্ধিকল্পে ইপিআরসি  প্রয়োজনীয় আর্থিক ও কারিগরী সহযোগিতা প্রদান করবে।

এনার্জিনিউজবিডি ডটকম: সাধারণত গবেষণাধর্মী প্রতিষ্ঠানগুলো প্রচারবিমুখ থাকে। ইপিআরসি কি এর ব্যতিক্রম হিসেবে কাজ করবে?

আহমেদ কায়কাউস: ইপিআরসি’র অন্যতম লক্ষ্য বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিষয়ক গবেষণার ক্ষেত্রে উৎকর্ষতা আনয়ন। উক্ত লক্ষ্যকে সামনে রেখে ইপিআরসি সৃজনশীল গবেষকগণের প্রায়োগিক গবেষণা কার্যক্রমে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা প্রদান করছে।

তরুণ ও প্রতিষ্ঠিত গবেষকগণকে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিষয়ক গবেষণা কার্যক্রমে উদ্বুদ্ধকরণ এবং এ সংক্রান্ত বিভিন্ন গবেষণা কার্যক্রমের মধ্যে সমন্বয় সাধনের লক্ষ্যে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ প্ল্যাটফর্ম।

কাউন্সিলের কার্যক্রম জনগণকে অবিহত করার আইনগত বাধ্যবাধকতা রয়েছে- যা কাউন্সিল আইনের ৫(৮) ধারায় সুষ্পষ্টভাবে উল্লেখ রয়েছে “বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিষয়ক গবেষণালব্ধ ফলাফল ও উহার প্রয়োগ সম্পর্কে জনগণকে অবহিত করিবার উদ্দেশ্যে সেমিনার, সিম্পোজিয়াম বা কর্মশালার আয়োজন এবং এতদ সংশ্লিষ্ট প্রকাশনার ব্যবস্থা গ্রহণ”

গবেষকগণ যাতে ইপিআরসি’র লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য, কার্যক্রম এবং ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সম্পর্কে অনায়াসে অবহিত হতে পারে এবং এই প্রতিষ্ঠানের সাথে সংযুক্ত হয়ে তাদের গবেষণা কার্যক্রমকে আরো ফলপ্রসূভাবে এগিয়ে নিতে পারে সে লক্ষ্যে কাউন্সিল সেমিনার, কর্মশালা, সিম্পোজিয়াম এবং ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রচার কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে।

 

সম্পাদক: আমিনূর রহমান
@ সর্বস্বত্ব এনার্জিনিউজবিডি ডটকম ২০১৫-২০১৯