পিডিবি’র নিয়ন্ত্রণাধীন বিতরণ এলাকা নিয়ে কোম্পানি গঠনের বিরুদ্ধে আবারও আন্দোলন  

    নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
    প্রকাশিত: এপ্রিল ২৭, ২০১৬ বুধবার ০৭:৩৯ পিএম BdST     ক্যাটাগরি: বিদ্যুৎ

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি) এর নিয়ন্ত্রণাধীন থাকা রাজশাহী রংপুর অঞ্চলের বিতরণ এলাকা নিয়ে নতুন কোম্পানি গঠনের বিরুদ্ধে ফের আন্দোলনে সোচ্চার হয়েছে কর্মকর্তা কর্মচারিরা।

প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার রাজধানীর বিদ্যুৎ ভবনে মহাসমাবেশের ডাক দিয়েছে পিডিবি শ্রমিক, কর্মকর্তা-কর্মচারি ঐক্য পরিষদ। আর ৩০ এপ্রিল রাজশাহী ও রংপুরে অবস্থান কর্মসূচি পালন করবে তারা।

ইতোমধ্যে পিডিবি’র রাজশাহী ও রংপুর অঞ্চলের ১৬টি জেলা নিয়ে নর্থ-ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (নওজোপাডিকো) গঠন করেছে সরকার।

আগামী ৩০ এপ্রিলের মধ্যে রাজশাহী ও রংপুর অঞ্চলের ওই ১৬ জেলার পিডিবি’র সব স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি নবগঠিত কোম্পানির কাছে হস্তান্তরের জন্য পিডিবিকে চিঠি দিয়েছে বিদ্যুৎ বিভাগ।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার রাজশাহীতে বিদ্যুৎ ভবন চত্ত্বরে এক প্রতিবাদ সমাবেশ করে শ্রমিক, কর্মকর্তা কর্মচারিরা।

পিডিবির রাজশাহী উত্তরাঞ্চল বিতরণ জোনের প্রধান প্রকৌশলী মো. হয়রত আলীর সভাপতিত্বে ওই প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন-আওয়ামী লীগ নেতা এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন, মো. ডাবলু সরকার, পিডিবি শ্রমিক, কর্মকর্তা-কর্মচারি ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক প্রকৌশলী মো. মোস্তাফিজুর রহমান, পিডিবি ডিপ্লোমা প্রকৌশলী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. জিয়াউদ্দিন, জাতীয় বিদ্যুৎ শ্রমিক লীগের সভাপতি মো. জহিরুল ইসলাম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মো. আলাউদ্দিন মিয়া প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, কোম্পানী গঠনের বিরুদ্ধে শ্রমিক, কর্মকর্তা কর্মচারিদের মধ্যে চরম অসেন্তোষ বিরাজ করছে। এর ফলে রাজশাহী জোনের রাজস্ব আদায় বৃদ্ধি ও সিস্টেম লস হ্রাসের কার্যক্রম ব্যাহত হবে। তাই কোম্পানি গঠন ঠেকাও আন্দোলনে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান তারা।

এদিকে, সোমবার পিডিবি’র নির্ধারিত বোর্ড সভাও তাদের আন্দোলনের কারণে হতে পারেনি।

সরকার বিদ্যুৎ ব্যবস্থাপনাকে একটি পরিকল্পিত নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থপনার আওতায় আনতে পিডিবি’র বিভিন্ন বিতরণ এলাকাকে আলাদা আলাদাভাবে কোম্পানি গঠন শুরু করেছে। এমনকি কোম্পানি গঠনের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনারও নির্দেশনা রয়েছে। এ ছাড়া পিডিবি ভেঙে আলাদা কোম্পানি গঠনের পরামর্শ রয়েছে দাতা সংস্থা বিশ্বব্যাংকেরও।

২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারিতে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ে বৈঠকে পিডিবিকে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তর এবং বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থা আরও সহজীকরণের লক্ষ্যে পিডিবিকে ভেঙে পেট্রোবাংলার আদলে করপোরেশন করার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী।

সেই থেকে বিদ্যুৎ বিভাগ দীর্ঘ বৈঠক ও আলোচনার পর রাজশাহী ও রংপুর অঞ্চলকে নিয়ে নর্থ ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি গঠন করে। এ কোম্পানিতে একজন ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ কয়েকজন কর্মকর্তা-কর্মচারি  নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

পর্যায়ক্রমে পিডিবিকে বিতরণ ব্যবস্থা থেকে সরিয়ে নিতে চায় সরকার। এর অংশ হিসেবে রংপুর-রাজশাহী, ময়মনসিংহ-টাঙ্গাইল, সিলেট এবং চট্টগ্রাম এলাকায় পৃথক পৃথক বিতরণ কোম্পানি করে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হবে। এর প্রথমটি হচ্ছে রংপুর এবং রাজশাহী অঞ্চল নিয়ে।

এর আগে পিডিবি ভেঙে ঢাকার বিদ্যুৎ বিতরণের জন্য পৃথক কোম্পানি ডেসা করা হয়। পরবর্তীতে ডেসা ভেঙে ডেসকো এবং ডিপিডিসি করা হয়। আবার দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলা নিয়ে গঠন করা হয় ওয়েস্ট-জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ওজোপাডিকো)।

এ ছাড়া দেশের গ্রামীণ জনপদে বিদ্যুৎ সরবরাহ করছে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড (আরইবি)। এর বাইরে দেশের সব এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ করছে পিডিবি।

গত বছরের ৪ আগস্ট বিদ্যুৎ বিভাগ পিডিবিকে এক চিঠিতে ওই বছরের ৩১ আগস্টের মধ্যে রাজশাহী ও রংপুর অঞ্চলের সীমানার মধ্যে থাকা পিডিবির জনবল, সম্পদ ও বাণিজ্যিক কার্যক্রম নবগঠিত নর্থ ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি  লিমিটেডকে হস্তান্তরের নির্দেশ দেয়।

এ ছাড়া নবগঠিত কোম্পানিকে কার্যকর করার লক্ষ্যে সমঝোতা স্মারক সই (এমওইউ) এবং ভেন্ডর এগ্রিমেন্ট (ভিএ) স্বাক্ষরের জন্য গত বছরের ৩১ জুলাই পর্যন্ত সময় বেঁধে দেওয়া হয়। ওই সময়  বিদ্যুৎ বিভাগের এ সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে পিডিবি’র সিবিএ সংগঠন ও কর্মকর্তা-কর্মচারিরা।

পরে আবারও  বিদ্যুৎ বিভাগ থেকে পিডিবিকে চিঠি দেওয়া হয় ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে পিডিবি’র সম্পত্তি নবগঠিত কোম্পানিকে হস্তান্তর করার জন্য।

তবে শ্রমিক, কর্মকর্তা-কর্মচারিদের আন্দোলনের মুখে পিডিবি ভেঙে নতুন কোম্পানি গঠনের সিদ্ধান্ত থেকে  পিছু হটে সরকার।

 

 

 

 

সম্পাদক: আমিনূর রহমান
@ সর্বস্বত্ব এনার্জিনিউজবিডি ডটকম ২০১৫-২০১৯