ঢাকা, সোমবার, জুন ১৮, ২০১৮, আষাঢ় ৪, ১৪২৫ ১১:৩১ পিএম
  
হোম এনার্জি বিডি এনার্জি ওয়ার্ল্ড গ্রীণ এনার্জি মতামত সাক্ষাৎকার পরিবেশ বিজনেস অন্যান্য আর্কাইভ
সর্বশেষ >
English Version
   
অন্যান্য
‘এলএনজিবাহী জাহাজ চলাচলে সমুদ্র এলাকায় মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা চায় পেট্রোবাংলা’
আমদানিকৃত এলএনজি বহনকারী জাহাজ ও ভাসমান টার্মিনালের নিরাপত্তার স্বার্থে কক্সবাজারের কলাতলীর পশ্চিমে গভীর সমুদ্র থেকে মহেশখালী দ্বীপ পর্যন্ত ২০ কিলোমিটার সমুদ্র এলাকায় মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা চেয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা পেট্রোবাংলা। তেল, গ্যাস ও খনিজ সম্পদ করপোরেশন (পেট্রোবাংলা) এর একজন কর্মকর্তা জানান, ভাসমান এলএনজি টার্মিনাল মহেশখালী দ্বীপ থেকে সাড়ে তিন-চার কিলোমিটার দূর সমুদ্রে অবস্থান করছে। এজন্য সমুদ্রের ওই এলাকায় মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা চাওয়া হয়েছে। এছাড়া সেখান থেকে ২ দশমিক ২৯ কিলোমিটার উত্তরে সামিট গ্রুপ আরেকটি এলএনজি টার্মিনালটি নির্মাণ করছে। মূলত পেট্রোবাংলার এলএনজিবাহী জাহাজটি কলাতলী সৈকত থেকে ১৭ কিলোমিটার পশ্চিমে এবং এলএনজি টার্মিনাল থেকে ১৭ কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্বে নোঙর করে রাখা হবে। এলএনজি টার্মিনাল তদারকির দায়িত্বে রয়েছে পেট্রোবাংলার অধীনস্থ রূপান্তরিত প্রাকৃতিক গ্যাস কোম্পানি লিমিটেড (আরপিজিসিএল)। আরপিজিসিএল এর নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন ব্যবস্থাপক বলেন, এলএনজি প্রকল্পের নিরাপত্তার জন্য জাহাজ নোঙর করার অবস্থান থেকে পেট্রোবাংলা ও সামিটের ভাসমান টার্মিনাল পর্যন্ত মোট ২০ কিলোমিটার উপকূলজুড়ে অর্থাৎ কলাতলী থেকে মহেশখালী দ্বীপ পর্যন্ত মৎস্য শিকার না করার অনুরোধ করা হয়েছে। তবে এটা সব সময়ের জন্য নয়, কেবল জাহাজ চলাচলের সময় বন্ধ করতে বলা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, এলএনজিবাহী জাহাজ চলাচলের সময় সাগরে জাল থাকলে জাহাজ আটকে যাওয়ার ঝুঁকি থাকে। কাতারসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ থেকে সমুদ্রপথে এলএনজি নিয়ে আসা জাহাজ, সার্ভিস ভেসেল ও ভাসমান টার্মিনালের নিরাপত্তা বাংলাদেশ সরকারকে নিশ্চিত করতে হবে। এজন্য মৎস্য আহরণ নিষিদ্ধ ঘোষণা করতে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিতে সম্প্রতি জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগে চিঠি পাঠিয়েছে পেট্রোবাংলা। দেশে ইলিশের পাঁচটি অভয়ারণ্যের একটি কক্সবাজারের মহেশখালী। তবে উপকূলজুড়ে মৎস্য শিকার বন্ধ হলে ক্ষতিগ্রস্ত হবে এ পেশার সঙ্গে জড়িত কয়েক হাজার মানুষ। যদিও পেট্রোবাংলা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য মৎস্য শিকার বন্ধ রাখতে চায়। বর্তমানে দেশে দৈনিক ৪০০ কোটি ঘনফুট গ্যাসের চাহিদা রয়েছে। এর বিপরীতে সরবরাহ করা হচ্ছে ২৭০ কোটি ঘনফুট গ্যাস। আর সংকট ক্রমেই বাড়ছে। তাই ঘাটতি দূর করতে এলএনজি আমদানির উদ্যোগ নেয় জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ।
শেভরন বাংলাদেশের নতুন প্রেসিডেন্ট নীল মেনজিস
জুন ০৬, ২০১৮ বুধবার ০৩:১৩ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
শেভরন বাংলাদেশের নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে গত ৩ জুন দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন। নীল এর আগে শেভরনের ইউরেশিয়ান বিজনেস ইউনিটের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক পদে কর্মরত ছিলেন। শেভরন বাংলাদেশের একটি অন্যতম বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান। কোম্পানীটি দেশে অর্ধেকেরও বেশি প্রাকৃতিক গ্যাস উত্তোলন করে। শেভরন বাংলাদেশের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট কেভিন লিওনের স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন নীল। কেভিন ২০১৫ সালের ১ জানুয়ারি থেকে এই পদে নিযুক্ত হন। তাকে বর্তমানে শেভরনের ইউরেশিয়ান বিজনেস ইউনিটের বিশেষ উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে।
ক্যাটাগরি: অন্যান্য
পেট্রোবাংলা’র কর্মচারী ইউনিয়নের নতুন সভাপতি সাহেব আলী এবং সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর
মে ৩০, ২০১৮ বুধবার ০৪:১৯ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
বাংলাদেশ তৈল, গ্যাস ও খনিজ সম্পদ করপোরেশন (পেট্রোবাংলা) কর্মচারী ইউনিয়ন এর নবনির্বাচিত প্রতিনিধিদের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান গত ২৭ মে কাওরান বাজারস্থ পেট্রোসেন্টারের ড. হাবিবুর রহমান অডিটরিয়াম এ অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান আবুল মনসুর মোঃ ফয়েজউল্লাহ, বিশেষ অতিথি হিসেবে পেট্রোবাংলার পরিচালক (প্রশাসন) মোঃ মোস্তফা কামাল, পরিচালক (অর্থ) মোঃ তৌহিদ হাসানাত খান, পরিচালক (পরিকল্পনা) মোঃ আইয়ুব খান চৌধুরী সহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এবং কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।    উল্লেখ্য, গত ১৫ মে অনুষ্ঠিত পেট্রোবাংলা কর্মচারী ইউনিয়নের ২০১৮ সালের সাধারণ নির্বাচন এ সভাপতি পদে শেখ মো: সাহেব আলী মিয়া এবং সাধারণ সম্পাদক পদে মো: জাহাঙ্গীর হোসেন আগামী দুই বছরের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। এছাড়াও সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে শাহ হামিদুর রহমান, সহ-সভাপতি পদে মেজবাহ উদ্দিন, সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে মো: শহীদ্দুল্যাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক পদে খাবিরু আহমেদ, অর্থ সম্পাদক পদে মো: ফিরোজ আহমেদ, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে মো: আজাদ হোসেন এবং নির্বাহী সদস্য পদে মো: মিলন খান নির্বাচিত হয়েছেন।  পেট্রোবাংলা কর্মচারী ইউনিয়ন সাধারণ নির্বাচন এ ৯টি পদের বিপরীতে মোট ২৮ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন এবং ১৯৪ জন ভোট প্রদান করেন।
ক্যাটাগরি: অন্যান্য
‘বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দ্রুত সরবরাহ বৃদ্ধি আইনের মেয়াদ তিন বছর বাড়ছে’
মে ১৪, ২০১৮ সোমবার ১১:৪৪ এএম - স্টাফ করেসপনডেন্ট, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের ২০২১ সাল পর্যন্ত গৃহীত উন্নয়ন পরিকল্পনা দ্রুত বাস্তবায়নের জন্য বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দ্রুত সরবরাহ বৃদ্ধি (বিশেষ বিধান) আইন ২০১০ এর মেয়াদ আবারও বাড়ানো হচ্ছে। প্রচলিত দরপত্র প্রক্রিয়ায় প্রকল্প বাস্তবায়নে দীর্ঘ সময় লাগে। তাই দ্রুত প্রকল্প বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ২০১০ সালে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সরবরাহ বৃদ্ধির বিশেষ বিধান করা হয়। এর আগে দু’বার এ আইনের মেয়াদ বাড়ানো হয়। আগামী অক্টোবরে এর মেয়াদ শেষ হবে। এই বিশেষ বিধানের মেয়াদ এবার তিন বছর বাড়ানো হতে পারে। এর মধ্যেই অর্থ, বাণিজ্য, জনপ্রশাসন ও স্বরাষ্ট্র্র মন্ত্রণালয়ের মতামত নেওয়া হয়েছে। এখন আইন মন্ত্রণালয়ের মতামত নিয়ে প্রস্তাবটি মন্ত্রিসভার বৈঠকে উত্থাপন করা হবে। মন্ত্রিসভায় অনুমোদন পেলে তা পাঠানো হবে জাতীয় সংসদে। এ ব্যাপারে পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক মোহাম্মদ হোসেন বলেন, আগামী অক্টোবরে বর্তমান আইনটির মেয়াদ শেষ হবে। এরপর আরও তিন বছর, অর্থাৎ ২০২১ সালের অক্টোবর পর্যন্ত মেয়াদ বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, এই আইনের আওতায় ভাড়াভিত্তিক দ্রুত বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের কারণেই বিদ্যুৎ খাতের উন্নয়ন গতিশীল করা সম্ভব হয়েছে। ২০০৯ সালে বিদ্যুৎ খাতে যে সংকট  ছিলো তা থেকে বেরিয়ে আসাও সম্ভব হয়েছে। ২০১০ সালে পাস হওয়া আইনটির মেয়াদ ২০১২ সালে শেষ হওয়ার পর আরও দুই বছর, অর্থাৎ ২০১৪ সাল পর্যন্ত বাড়ানো হয়। ২০১৪ সালের অক্টোবরে দ্বিতীয় দফায় চার বছর মেয়াদ বাড়িয়ে ২০১৮ সালের অক্টোবর পর্যন্ত করা হয়। আগামী ১১ অক্টোবর এই মেয়াদও শেষ হচ্ছে। এই আইনের বিশেষ বিধান হলো, ‘পাবলিক প্রকিউরমেন্ট আইন, ২০০৬ বা আপাতত বলবৎ অন্য কোন আইনে যা কিছুই থাকুক না কেন, এই আইনের বিধানাবলী প্রাধান্য পাবে। এই আইনের অধীনকৃত, বা কৃত বলে বিবেচিত কোন কাজ, গৃহীত কোন ব্যবস্থা, প্রদত্ত কোন আদেশ বা নির্দেশের বৈধতা সম্পর্কে কোন আদালতের নিকট প্রশ্ন উত্থাপন করা যাবে না।’
ক্যাটাগরি: অন্যান্য
এন্টারপ্রাইজ রিসোর্স প্লানিং উন্নত বাংলাদেশ গড়তে কার্যকর অবদান রাখবেঃ বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী
মে ০৯, ২০১৮ বুধবার ০৯:০৩ পিএম - স্টাফ করেসপনডেন্ট, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
সমন্বিত এন্টারপ্রাইজ রিসোর্স প্লানিং উন্নত বাংলাদেশ গড়তে কার্যকর অবদান রাখবে বলে মনে করেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। বুধবার বিদ্যুৎ ভবনে ‘ইনোভেশন শোকেসিং’এর সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা তিনি। তিনি বলেন, বিদ্যুৎ উৎপাদন, বিতরণ, সঞ্চালন ও অফিস ব্যবস্থাপনার মধ্যে সমন্বয় করে এন্টারপ্রাইজ রিসোর্স প্লানিং (ইআরপি) করতে হবে। বিদ্যমান সিস্টেম আপডেট করে চাহিদা ও যোগান মনিটরিং করা প্রয়োজন। প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়িয়ে চাহিদা-যোগানের ভারসাম্য করা গেলেই আগামী তিন বছরের মধ্যে বিদ্যুৎ বিভাগ পেপারলেস অফিস হবে। সে দিকেই যাচ্ছে বিদ্যুৎ বিভাগ। তিনি বলেন, আমাদের সকল উদ্যোগের সাথে জনসম্পৃক্ততা বাড়ানো প্রয়োজন। উদ্ভাবনী কাজের মাধ্যমে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারিদের জবাবদিহিতা ও সেবার মান বাড়বে। প্রযুক্তির মাধ্যমে সেবা সহজীকরণ এবং মানুষের দোরগোড়ায় সেবা দ্রুত ও সহজতরভবে পৌঁছানো সম্ভব। তাই দ্রুততার সাথে প্রযুক্তির ব্যবহার ও প্রয়োগ বাড়াতে হবে। সরাসরি নাগরিক সেবা বৃদ্ধি এবং দাপ্তরিক ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন নিয়ে ইনোভেশন শোকেসিং এ ৪০ টি উদ্ভাবনী উদ্যোগ এর মধ্যে ১৬টি উদ্যোগকে পাইলট করা হয়। যার মধ্যে পাইলট উদ্যোগ ১৩টি সম্পন্ন হয়েছে। বিদ্যুৎ বিভাগের কেন্দ্রীয় কমপ্লেইন ও ফিডব্যাক ম্যানেজমেন্ট সিষ্টেম উদ্যোগটি শোকেসিং এর মাধ্যমে দেশব্যাপী স্কেলআপের জন্য চিহ্নিত করা হয়েছে। বিদ্যুৎ সচিব ড. আহমেদ কায়কাউস এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক মো. আবুল কালাম আজাদ, মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) এন এম জিয়াউল হক ও বিদ্যুৎ বিভাগের প্রধান ইনোভেটিভ কর্মকর্তা অতিরিক্ত সচিব মোছাঃ মাকছুদা খাতুন বক্তব্য রাখেন।  
ক্যাটাগরি: অন্যান্য
‘বাংলাদেশ পাওয়ার ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউট এ প্রশিক্ষণ কর্মসূচি উদ্বোধন’
মে ০৬, ২০১৮ রবিবার ০৬:৪৫ এএম - স্টাফ করেসপনডেন্ট, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
সাবলীলভাবে দ্রুত সেবা দিতে প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়ানোর প্রতি তাগিদ দিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। তিনি বলেন, আর্টিফিসিয়াল ইন্টিলেজেন্স কিভাবে আরো বেশি বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে কাজে লাগানো যায় তা নিয়ে গবেষণা এখন সময়ের দাবি। দক্ষ ও নিবেদিতপ্রাণ কর্মী ছাড়া কোন প্রতিষ্ঠানই উন্নতি করতে পারে না। দক্ষতা বৃদ্ধিতে প্রশিক্ষণের কোন বিকল্প নেই। শনিবার ঢাকায় বিদ্যুৎ ভবনে বাংলাদেশ পাওয়ার ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউট (বিপিএমআই) এর প্রথম প্রশিক্ষণ কর্মসূচি ‘প্রজেক্ট ফরমুলেশন, ইমপ্লিমেন্টেশন, মনিটরিং অ্যান্ড ইভালুয়েশন’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, আইআইটি, এআইটি  বা এমআইটি এর মত আন্তর্জাতিক মানের প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান গড়ার লক্ষ্যে বাংলাদেশ পাওয়ার ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউট গঠন করা হয়েছে। ঢাকার অদূরে কেরাণীগঞ্জে ২৫ একর জমি নিয়ে সম্পূর্ণ আবাসিক এ প্রতিষ্ঠান গড়া হচ্ছে। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিভাগের আওতাধীন দপ্তর-আধিদপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারিরা যাতে  খোলা মন নিয়ে জনকল্যানে চিন্তা-ভাবনা করতে পারে, সেভাবেই তাদের গড়ার উদ্যোগ অব্যাহত রাখা হয়েছে। বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব ডঃ আহমদ কায়কাউস এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে বাংলাদেশ পাওয়ার ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউট এর রেক্টর ও অতিরিক্ত সচিব মোঃ মাহবুব-উল-আলম, বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ ও পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক মোহাম্মদ হোসেন বক্তব্য রাখেন।
ক্যাটাগরি: অন্যান্য
বিপিসি’র নতুন চেয়ারম্যান হলেন আকরাম
এপ্রিল ১১, ২০১৮ বুধবার ০৮:৫১ পিএম - স্টাফ করেসপনডেন্ট, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের (বিপিসি) নতুন চেয়ারম্যান হিসেবে মোঃ আকরাম-আল-হোসেনকে নিয়োগ দিয়েছে সরকার। বুধবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে এ নিয়োগের কথা জানিয়ে বলা হয়, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আকরামকে সরকারের ভারপ্রাপ্ত সচিবের পদমর্যাদায় বিপিসি’র চেয়ারম্যান পদে নিয়োগ দেওয়া হলো। আর বিপিসি’র বর্তমান চেয়ারম্যান আবু হেনা মোঃ রহমাতুল মুনিম জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সচিব পদে নিয়োগ পেয়েছেন।
ক্যাটাগরি: অন্যান্য
জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের নতুন সচিব রহমাতুল মুনিম
এপ্রিল ১১, ২০১৮ বুধবার ০৮:৩১ পিএম - স্টাফ করেসপনডেন্ট, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের (বিপিসি) চেয়ারম্যান আবু হেনা মোঃ রহমাতুল মুনিমকে জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সচিব পদে নিয়োগ দিয়েছে সরকার। বুধবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে এ নিয়োগ দেওয়া হয়। বর্তমানে চুক্তিতে জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সচিব পদে নাজিমউদ্দিন চৌধুরী নিয়োজিত আছেন। তাঁর চুক্তির মেয়াদ শেষ হবে চলতি বছরের ৯ মে। সে হিসেবে নতুন সচিব রহমাতুল মুনিম আগামী ১০ মে যোগ দিতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। বিসিএস (প্রশাসন) ৮৪ ব্যাচের কর্মকর্তা মুনিম বিপিসিতে যোগদানের পর অনেক উল্লেখযোগ্য কাজ করেছেন। এর মধ্যে রয়েছে জ্বালানি তেলের চুরি বন্ধে নিয়মিত অভিযান, জ্বালানি তেলের ফিলিং স্টেশন নীতিমালা আধুনিকায়ন, কনডেনসেট সরবরাহ ও ব্যবহারে জটিলতা দূরীকরণ, লুব অয়েল নীতিমালার খসড়া প্রণয়ন, বাংলাদেশ সেনা ও নৌ বাহিনীর তত্ত্বাবধানে জ্বালানি তেল পরিবহনের জন্য পাইপলাইন নির্মাণ প্রকল্প। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ত্ব বিভাগ থেকে ১৯৮১ সালে অনার্স এবং ১৯৮২ সালে মাস্টার্স সম্পন্ন করেন। আর ১৯৮৬ সালের ২১ জানুয়ারি সহকারী সচিব পদে তৎকালীন সংস্থাপন মন্ত্রণালয়ে যোগ দেন। ১৯৬১ সালের ৬ জানুয়ারি সিরাজগঞ্জে জম্মগ্রহণ করেন তিনি।
ক্যাটাগরি: অন্যান্য
বিদ্যুৎ বিভাগে দ্বিতীয় বারের মতো ১৬৫ জন শিক্ষার্থী ইন্টার্নশিপ করবে
এপ্রিল ১০, ২০১৮ মঙ্গলবার ১০:৫৩ এএম - স্টাফ করেসপনডেন্ট, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
দ্বিতীয় বারের মতো ১৬৫ জন তরুণ শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন দপ্তরে চাকরি পূর্ব প্রশিক্ষণ বা ইন্টার্নশিপ করার সুযোগ দিচ্ছে বিদ্যুৎ বিভাগ। বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় ও বেসরকারি গবেষণা সংস্থা সিআরআই এর যৌথ উদ্যোগে  এই কর্মসূচি বাস্তবায়ন হচ্ছে। সোমবার রাজধানীর বিদ্যুৎ ভবনে প্রথম ইন্টার্নশিপ প্রকল্পের ১০০ শিক্ষার্থীর মাঝে সনদ বিতরণ ও নতুন প্রকল্পের ১৬৫ শিক্ষার্থীর ইন্টার্নের উদ্বোধন করেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী বলেন, উন্নত বিশ্বে দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে এ ধরনের পদ্ধতি চালু থাকলেও বাংলাদেশে বিদ্যুৎ বিভাগই প্রথম এই প্রশিক্ষণ চালু করেছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও আইসিটি মন্ত্রণালয়েও ইন্টার্নশিপ চালু হয়েছে। প্রতিমন্ত্রী বলেন, ভবিষ্যৎ কর্মক্ষেত্রের সাথে দ্রুত খাপ খাওয়াতে ইন্টার্নশীপ কার্যকর অবদান রাখবে। চাকরি পূর্ব প্রশিক্ষণ বা ইন্টার্নশিপ দক্ষ জনগোষ্ঠী গঠন করবে। যারা পরবর্তী আধুনিক বাংলাদেশ গড়ে জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়বে। অচিরেই এ মন্ত্রণালয় থেকে প্রতি বছর ৫০০ জন শিক্ষার্থীর ইন্টার্নশিপের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানান প্রতিমন্ত্রী। বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে সিআরআই এ পর্যন্ত ২৬,৫০০ জনকে চাকুরি, প্রশিক্ষণ ও স্বেচ্ছাসেবী হিসাবে কাজ করার সুযোগ করে দিয়েছে বলে অনুষ্ঠানে জানানো হয়। বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব আহমদ কায়কাউস বলেন, গত বছর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় থেকে ১০০ জনকে ইন্টার্নশিপ করার সুযোগ দেয়া হয়েছে, এ বছর ১৬৫ জনকে দেয়া হচ্ছে। পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক মোহাম্মদ হোসাইন বলেন, ডেমোগ্রাফিক ডেভিডেন্ট এর সুবিধার সুফল দ্রুত পেতে আজকের তরুণদের যোগ্য ও দক্ষ করে গড়ে তোলা আমাদের নৈতিক দায়িত্ব । কর্ম পরিবেশের সাথে পূর্ব থেকেই ধারণা থাকলে আরো আস্থাশীল হয়ে সাবলীলভাবে কাজ করা যায়। ফলে ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন দ্রুত করা সম্ভব বলে করেন প্রকৌশলী মোহাম্মদ হোসাইন।  
ক্যাটাগরি: অন্যান্য
বাপেক্স অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন এর নির্বাচনে মেহেরুল ও মাহবুবুল পুনঃনির্বাচিত
মার্চ ৩০, ২০১৮ শুক্রবার ০৯:১৩ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
বাপেক্স অফিসার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন এর ২০১৮ সালের নির্বাচনে সভাপতি পদে ২৯৭ ভোট পেয়ে মেহেরুল হাসান এবং ২৪০ ভোট পেয়ে কাজী মাহবুবুল আলম পুনঃ নির্বাচিত হয়েছেন। তাদের নিকটতম প্রতিদ্বন্দীরা পেয়েছেন যথাক্রমে ১০৩ ও ১৫৯ ভোট। বাপেক্স এর প্রধান কার্যালয়সহ আঞ্চলিক কার্যালয়, বিভিন্ন গ্যাসক্ষেত্র ও সাইসমিক জরিপ পার্টিতে গত ২৮ মার্চ এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। নির্বাচনে বিপুল ভোটে বিজয়ী করায় সভাপতি বাপেক্স এর সকল স্তরের কর্মকর্তাবৃন্দকে আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। নবনির্বাচিত সভাপতি বাপেক্স এর সকল স্তরের কর্মকর্তাবৃন্দের সহযোগিতায় সরকারের রূপকল্প ২০২১ বাস্তবায়নের মাধ্যমে জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিত করে বাংলাদেশকে একটি মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত করার লক্ষ্যে কাজ করে যাবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি বাপেক্সকে একটি আন্তর্জাতিক মানের তেল-গ্যাস অনুসন্ধান ও উৎপাদন কোম্পানীতে রূপান্তরের জন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। অ্যাসোসিয়েশনের অন্য সদস্যরা হলেন- মোঃ মশিউর রহমান (সিনিয়র সহ সভাপতি), লিপন চন্দ্র সেন (সহ সভাপতি), মোঃ আসাদুজ্জামান খান (যুগ্ম সম্পাদক), মোহাম্মদ আসাদুল্লাহ (সহ সাধারণ সম্পাদক), আবু সায়েম মাসুদ (সাংগঠনিক সম্পাদক), মোঃ ফখরুল আলম খান (অর্থ সম্পাদক), মোঃ আবুল কালাম আজাদ (কল্যাণ সম্পাদক), কামরুন নাহার (প্রচার সম্পাদক), মোঃ তারিকুল আলম ভূইয়া (দপ্তর সম্পাদক), মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম তালুকদার (ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক) এবং রাবেয়া বসরী (মহিলা সম্পাদক)। আর পরিষদ সদস্যরা হলেন- মোঃ শহীদুল্লাহ্, তারিক উর রহমান ও মোঃ সাদ্দাম হোসেন এবং আঞ্চলিক সদস্য মুহাম্মদ মজিবুল ইসলাম।
ক্যাটাগরি: অন্যান্য
বিআইএফএফএল এর ৭ম বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত
মার্চ ২৯, ২০১৮ বৃহস্পতিবার ০৬:২৩ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
বাংলাদেশ ইনফ্রাস্ট্রাক্চার ফাইন্যান্স ফান্ড লিমিটেড (বিআইএফএফএল) এর ৭ম বার্ষিক সাধারণ সভা গত ২৭ মার্চ ঢাকায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। উক্ত সভায় শেয়ারহোল্ডারগণ অর্থবছর ২০১৭ সমাপ্ত বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক বিবরণী অনুমোদন করে এবং উক্ত অর্থবছরের জন্য ৬৪ কোটি টাকা লভ্যাংশ অনুমোদন করে যার মধ্যে ৪৯ কোটি টাকা স্টক লভ্যাংশ (বোনাস শেয়ার) ও ১৫ কোটি টাকা নগদ লভ্যাংশ রয়েছে। ফলে প্রতিষ্ঠানের বর্তমান পরিশোধিত মূলধন ২১০৮ কোটি টাকায় উন্নীত হবে বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। ২০১১ সালে প্রতিষ্ঠিত সরকারি মালিকানাধীন এ আর্থিক প্রতিষ্ঠানটি ইতিমধ্যে দেশের বিদ্যুৎ, অর্থনৈতিক অঞ্চল, টুরিজ্যম, স্বাস্থ্য ও পরিবেশবান্ধব শিল্পখাতে ১৭১৬.২৭ কোটি টাকা অর্থায়ন করেছে এবং আরো প্রায় ১৫০০ কোটি টাকা অর্থায়নের অপেক্ষায় রয়েছে। দেশের ভারসাম্যপূর্ণ অর্থনৈতিক উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতে অবকাঠামো ও পরিবেশবান্ধব প্রকল্পসমূহে অর্থায়ন করাই প্রতিষ্ঠানটির মূল লক্ষ্য। উক্ত সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান এবং অর্থ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব মোহাম্মদ মুসলিম চৌধুরী। সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন পরিচালক ও শেয়ারহোল্ডার সেতু বিভাগের সিনিয়র সচিব আনোয়ারুল ইসলাম, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সচিব নাজিমুদ্দিন চৌধুরী, বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব ড.আহমদ কায়কাউস, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সচিব কাজি শফিকুল আজম, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মোঃ নজরুল ইসলাম সচিব, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব সাজ্জাদুল হাসান, বিআইএফএফএল এর নির্বাহী পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম ফরমানুল ইসলাম, কোম্পানি সচিব মোহাম্মদ খান এবং বিআইএফএফএল এর কর্মকর্তা-কর্মচারী ও বহি:নিরীক্ষক প্রতিনিধি।  
ক্যাটাগরি: অন্যান্য
বাংলাদেশের বিদ্যুৎ খাতে অবদানের ২০ বছর পূর্তি উদযাপন করেছে ওয়ার্টসিলা
মার্চ ১৫, ২০১৮ বৃহস্পতিবার ০৭:০১ এএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
আধুনিক প্রযুক্তিভিত্তিক সার্ভিস প্রদানের মাধ্যমে মানুষের জীবনযাত্রার মানোন্নয়নে বিদ্যুৎ ও সামুদ্রিক খাতে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তিভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ওয়ার্টসিলা গত দুই দশক যাবত বাংলাদেশের বিদ্যুৎ খাতের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। বাংলাদেশে প্রতিষ্ঠানটির ২০ বছর পূর্তি উপলক্ষে সম্প্রতি তারা বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠান উদযাপন করে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্টসিলা করপোরেশনের প্রেসিডেন্ট এবং সিইও ইয়াকো এসকোলা, ওয়ার্টসিলা করপোরেশন এনার্জি সল্যুশন বিভাগের প্রেসিডেন্ট হ্যাভিয়ার কাভাডা ক্যামিনো প্রমুখ। অনুষ্ঠানে জ্যাকো এসকোলা উপস্থিত অতিথি ও অংশীদারদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এবং বাংলাদেশের মানুষের বিদ্যুতের চাহিদা পূরণে ওয়ার্টসিলার প্রতিশ্রুতি তুলে ধরেন। অনুষ্ঠানে ওয়ার্টসিলা কর্পোরেশনের প্রেসিডেন্ট ও সিইও ইয়াকো এসকোলা বলেন, ‘আধুনিক প্রযুক্তিভিত্তিক সার্ভিস প্রদানের মাধ্যমে টেকসই সমাজ প্রতিষ্ঠা করাই আমাদের মূল লক্ষ্য। আর্থিক স্বচ্ছলতা বৃদ্ধি করা এবং বিভিন্ন উপায়ে বিদ্যুৎ উৎপাদন ও ব্যবহারে সাহায্য করতে আমরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।’ ওয়ার্টসিলা বাংলাদেশের ম্যানেজিং ডিরেক্টর  জিল্লুর রহিম বলেন, ‘বাংলাদেশের উন্নয়নে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ করা খুবই জরুরি। আমরা এ জন্য বাংলাদেশের বিদ্যুৎ খাতে আরও বিনিয়োগ করতে চাই। আমরা কাজের মাধ্যমে বাংলাদেশের মানবসম্পদেরও উন্নয়ন করতে চাই, যা পরবর্তীতে বাংলাদেশের বিদ্যুৎ খাতের সম্প্রসারণে সহায়তা করবে।’ বাংলাদেশের বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো যেন দেশের মানুষদের পর্যাপ্ত সেবা দিতে পারে সেই লক্ষ্যে গত ২০ বছরে ওয়ার্টসিলা দেশে দুটি ওয়ার্কশপ এবং একটি যন্ত্রাংশের গুদামঘর স্থাপন করেছে।
ক্যাটাগরি: অন্যান্য
‘২০৩০ সালের মধ্যে বিশ্বমানের প্রতিষ্ঠানে হবে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরী কমিশন’
মার্চ ১১, ২০১৮ রবিবার ১০:১২ পিএম - স্টাফ করেসপনডেন্ট, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরী কমিশনকে (বিইআরসি) বিশ্বমানের প্রতিষ্ঠানে উন্নীত করার লক্ষ্য নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন কমিশনের চেয়ারম্যান মনোয়ার ইসলাম। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের এ নিয়ন্ত্রক সংস্থা আগামী ১৩ মার্চ প্রথমবারের মতো প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করবে। এ উপলক্ষ্যে কমিশনের লক্ষ্য, উদ্দেশ্য ও ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা নিয়ে এ কথা বলেন তিনি। মনোয়ার ইসলাম বলেন, বিইআরসি প্রতিষ্ঠার পর অনেক সফলতা অর্জন করেছে। একটা প্রতিষ্ঠানের জন্য ১৬ বছর খুব একটা বড় সময় নয়। বাংলাদেশ ২০২১ সালে মধ্য আয়ের এবং ২০৪১ সালে উন্নত দেশে উন্নীত হবে। কমিশনও এই লক্ষ্যকে সামনে রেখে বিশ্বমানের প্রতিষ্ঠানে উন্নীত করার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। তিনি আরো বলেন, কমিশনের সকল কাজের জবাবদিহিতা ও স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে বিদ্যমান কার্যক্রমকে নতুনভাবে ঢেলে সাজানো হয়েছে। বর্তমান কমিশনের যোগদানের পূর্বে প্রতিমাসে একটা কমিশন সভা হলেও এখন প্রতিমাসে চারটি কমিশন সভা হচ্ছে। কমিশনের সকল অনুবিভাগের কাজের সমন্বয়, গতিশীলতা এবং জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ইতোপূর্বে কোনো মাসিক সমন্বয় সভা না হলেও বর্তমানে প্রতিমাসে একটা সমন্বয় অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এতে কমিশনের সকল অনুবিভাগের কাজের গতিশীলতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। চেয়ারম্যান বলেন, কমিশনের অন্যতম কাজ হচ্ছে লাইসেন্সীদের মধ্যে অথবা ভোক্তা ও লাইসেন্সীর (বিদ্যুৎ ও গ্যাস খাতের সংস্থা বা কোম্পানী) মধ্যে যদি কোনো বিরোধ থাকে তা নিষ্পন্ন করা। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে বিপুল বিরোধ মামলা অনিষ্পন্ন ছিলো। তা প্রায় নিষ্পত্তি করা হয়েছে। এগুলো বছরের পর বছর অনিষ্পন্ন ছিলো। কমিশন প্রতিষ্ঠার পর ২০১৬ সাল পর্যন্ত যতটা বিরোধ নিষ্পত্তি হয়েছে তারচেয়ে গত এক বছরে অনেক বিরোধ নিষ্পত্তি হয়েছে। কমিশন বিদ্যুৎ, গ্যাস ও পেট্রোলিয়াম খাতে সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানসমূহকে শ্রেণিভিত্তিক লাইসেন্স প্রদান করছে। লাইসেন্সের আবেদন প্রাপ্তির পর তা যাচাই-বাচাই সাপেক্ষে ধারাবাহিকভাবে প্রদান করা হচ্ছে। প্রসঙ্গক্রমে চেয়ারম্যান বলেন, সম্প্রতি একজন বিনিয়োগকারী অবহিত করেছেন যে, পূর্বে লাইসেন্স পেতে দুই-তিন বছর লাগত যা বর্তমানে পাঁচ-ছয় দিনে পাওয়া সম্ভব হচ্ছে। তিনি বলেন, কমিশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে একটা দায়বদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে বলেই এটা সম্ভব হয়েছে। কমিশনের চেয়ারম্যান আরো বলেন, কমিশনের গুরুত্বপূর্ণ কাজ হচ্ছে বেসরকারি বিনিয়োগকারীদের উদ্বুদ্ধ করা, ভোক্তাদের পাশাপাশি বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের সরকারি সংস্থা এবং কোম্পানীগুলোকে সহযোগিতা দেওয়া। বর্তমানে এ বিষয়টি আন্তরিকতা ও দক্ষতার সাথে করা হচ্ছে। এছাড়াও জ্বালানির সাশ্রয়ী ব্যবহার ও দক্ষতা বাড়াতে শীঘ্রই এনার্জি অডিট চালু করা হচ্ছে যা কমিশনের অন্যতম একটা চ্যালেঞ্জ। তিনি আরো বলেন, সম্প্রতি গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্য পুর্ননির্ধারণ করা হয়েছে। সুনির্দিষ্ট একটি পদ্ধতি অনুসরণ করেই এটি করা হয়েছে। কমিশন গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্যহার নির্ধারণের পূর্বে সংশ্লিষ্ট ইউটিলিটি, ভোক্তাদের মতামত ও পরামর্শ করার জন্য গণশুনানির আায়োজন করে থাকে। সকল পক্ষের মতামত শোনার পর কমিশন সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। তিনি বলেন, বিদ্যুৎ ও গ্যাসের ট্যারিফ নির্ধারণের পর সংশ্লিষ্ট বিতরণকারী সংস্থা ও কোম্পানীগুলো সব সময় সন্তুষ্ট হয় না। কারণ তারা তাদের চাহিদা মতো তারা ট্যারিফ পায় না। দাম বাড়লেই গ্রাহকদের অসন্তোষ হওয়া স্বাভাবিক। কিন্তু যারা সত্যিকারের গ্রাহক তারা চায় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ। বিদ্যুৎ সরবরাহকারী সংস্থা বা কোম্পানীগুলোর মধ্যে ডিমান্ড চার্জ গ্রহণের ক্ষেত্রে বৈষম্য ছিল যা বর্তমানে অভিন্ন করা হয়েছে। বিদ্যুতের মূল্য বাড়ানো হয়েছে বলে বাইরে থেকে শোনা যায় কিন্তু প্রকৃতপক্ষে এই প্রথম লাইফ লাইন গ্রাহকদের (নূন্যতম বিদ্যুৎ ব্যবহারকারী) বিদ্যুৎ বিল কমানো হয়েছে। আগে একজন গ্রাহকের বিল ৪৫ টাকা হলেও তাকে নূন্যতম ১০০ টাকা পরিশোধ করতে হতো। কিন্তু বর্তমানে তাকে ৪৫ টাকাই পরিশোধ করতে হয়। এর ফলে বর্তমানে ৩০ লাখ গ্রাহক উপকৃত হয়েছে। আর প্রায় ৭০ লাখ গ্রাহকের বিদ্যুৎ বিলের দামই বাড়ানো হয়নি। এটা কমিশনের জন্য একটা স্বস্ত্বির ব্যাপার। আমি মনে করি, মূল্য পুনর্নির্ধারণ হওয়ায় টেকসই জ্বালানি নিরাপত্তার ক্ষেত্রে এটা একটা পরিপূরক হিসেবে কাজ করছে। বাংলাদেশ একটা উন্নয়নশীল দেশ। নতুন ট্যারিফ যদি কোম্পানী বা সংস্থাগুলো না পেত তবে তারা অর্থনৈতিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়তো। তখন বিদ্যুৎ ও গ্যাস সরবরাহ অনিশ্চিত হয়ে যেত। মানুষ ঠিকমতো বিদ্যুৎ পেত না। একটা জিনিস মনে রাখতে হবে কস্ট অব এনার্জি, কস্ট অব নো এনার্জি, এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এক্ষেত্রে কমিশনের একটা বিশাল ভূমিকা ছিলো। আমরা এখনো যে রেটে বিদ্যুৎ বা গ্যাস গ্রাহকদের দিচ্ছি এটা অনেক বেশি কমপেটিটিভ, বিশ্বের অন্য যেকোনো দেশের তুলনায়। এমনকি প্রতিবেশি দেশগুলোর সাথে তুলনা করলেও অনেক বেশি সুলভ। তিনি বলেন, দেশে আগে বিদ্যুৎ খাতে ৪০ শতাংশ সিস্টেম লস ছিলো এখন তা ১০ শতাংশের নিচে নেমে এসেছে। সমসাময়িক অনেক দেশের সাথে তুলনা করলে আমরা অনেক ভালো অবস্থানে আছি। তবে এটাতে আমাদের সন্তুষ্ট হওয়ার কারণ নেই। আমাদের আরো কাজ করতে হবে। চেয়ারম্যান বলেন, আগামী দিনে কমিশন কি কাজ করবে তার একটা কর্মপরিকল্পনা করেছি। ইউনিফাইড অ্যাকাউন্ট সিস্টেম চালু করা, কর্মকর্তা-কর্মচারিদের মধ্যে ডিলিগেশন অব পাওয়ার নির্ধারণ, বার্ষিক পারফরম্যান্স এগ্রিমেন্ট এবং তাদের বার্ষিক প্রশিক্ষণ পরিকল্পনা প্রণয়ন করা হচ্ছে। পাশাপাশি তাদের মধ্যে ন্যাশনাল ইন্টিগ্রেটি অ্যাপ্রোচ ও দুর্নীতি বিরোধী মনোভাব সৃষ্টিতে কাজ করা হচ্ছে। এজন্য ধারাবাহিকভাবে প্রশিক্ষণও দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া কমিশনের স্থায়ী কার্যালয় স্থাপনের কাজ চলমান রয়েছে এবং জনবল বৃদ্ধির জন্য ইতোমধ্যে মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব প্রেরণ করা হয়েছে।
ক্যাটাগরি: অন্যান্য
বিবিএস কেবলস্ লিমিটেড এর ৬ষ্ঠ ডিলার কনফারেন্স অনুষ্ঠিত
মার্চ ০৩, ২০১৮ শনিবার ০৮:২৯ পিএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
দেশের শীর্ষস্থানীয় কেবলস্ উৎপাদনকারী কোম্পানি বিবিএস কেবলস্ লিমিটেড এর ৬ষ্ঠ ডিলার কনফারেন্স ২০১৮ গত ১ মার্চ  ঢাকায় ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরা (আইসিসিবি) হল-৪ এ অনুষ্ঠিত হয়েছে । উক্ত অনুষ্ঠানে  বিবিএস কেবলস্ লিমিটেড এর  চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মোঃ বদরুল হাসান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইঞ্জিঃ আবু নোমান হাওলাদার, পরিচালক ইঞ্জিঃ হাসান মোর্শেদ চৌধুরী, পরিচালক ইঞ্জিঃ মোঃ রুহুল মজিদ , পরিচালক মোঃ আশরাফ আলী খান, বিবিএস কেবলস্ লিমিটেড এর বিক্রয় ও বিপণন বিভাগের উর্দ্ধতন মহাব্যবস্থাপক ওমর ফারুক এবং বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।           উল্লেখ্য, সারাদেশ থেকে আগত বিবিএস কেবলস্ লিমিটেড এর সহস্রাধিক ডিলার কনফারেন্স এ অংশগ্রহণ করেন এবং বার্ষিক বিক্রয় লক্ষ্যমাত্রা অর্জনকারী ডিলারদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণসহ বিদেশ ভ্রমণ প্যাকেজ এর টিকিট বিতরণ করা হয়।
ক্যাটাগরি: অন্যান্য
বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীকে স্পেনের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা পদক প্রদান
ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১৮ সোমবার ০৭:৫৪ এএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
বাংলাদেশে নিযুক্ত স্পেনের রাষ্ট্রদূত আলভারো ডি সালাস গত ১৭ ফেব্রুয়ারী এক অনুষ্ঠানে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদকে স্পেনের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা পদক কমিটমেন্ট টু দি নাম্বার অব দি সিভিল মেরিট অর্ডার প্রদান করেন।   স্পেন ও বাংলাদেশের মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক উন্নয়নে অভুতপূর্ব অবদান রাখার জন্য স্পেনের রাজা ষষ্ঠ ফিলিপ বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীকে এ পদক প্রদান করেন বলে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। পদক প্রদান অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রদূত বলেন, এর মাধ্যমে দুই দেশের সম্পর্ক আরো বন্ধুত্বপূর্ণ হবে এবং এজন্য স্পেন গৌরবান্বিত বোধ করছে। ব্যবসা বাণিজ্যের বাইরের স্পেন জাতিসংঘে বাংলাদেশকে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ইস্যুতে সমর্থন জানানোর জন্য স্পেনের রাজা ও জনগণকে ধন্যবাদ জানান বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধি, মাইগ্রেশন, শরণার্থী সমস্যা, জঙ্গিবাদ ও বিশ্ব শান্তি স্থাপনে বাংলাদেশ এবং স্পেন একই অভিমত ধারণ করে। এ পদক প্রদানের জন্য স্পেনের রাজাকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তিনি আরো বলেন, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে স্পেনের সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর আরো কাজ করার সুযোগ রয়েছে। প্রতিমন্ত্রী এ সময় আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে জ্বালানি  নিরাপত্তা নিশ্চিত করে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ, তৈরী হচ্ছে আগামীর বাংলাদেশ।  
ক্যাটাগরি: অন্যান্য
‘আগামী ১৩ মার্চ এনার্জি রেগুলেটরী কমিশন প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করবে’
ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৮ রবিবার ০৮:১৩ এএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
প্রথমবারের মতো আগামী ১২ ও ১৩ মার্চ দুই দিনব্যাপি প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরী কমিশন (বিইআরসি)। কমিশনের চেয়ারম্যান মনোয়ার ইসলাম এনার্জিনিউজবিডি ডটকমকে বলেন, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা হিসেবে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে বিইআরসি। ভোক্তা ও লাইসেন্সিসহ জনগণের মাঝে বিইআরসি’র কার্যক্রম তুলে ধরার জন্যই এই আয়োজন করা হচ্ছে। তিনি বলেন, বিইআরসি’র অনেক অর্জন ও সফলতা আছে। ২০০৩ সালের ১৩ মার্চ বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরী কমিশন আইন পাশ হয়। ওইদিনকে সামনে রেখে এবারই প্রথমবারের মতো বিইআরসি দিবস হিসেবে পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরার জন্য ১৩ মার্চ প্যান প্যাসিফিক হোটেল সোনারগাঁও এ ‘২০২১ ও ২০৪১ সালে বিইআরসি’র কর্মপরিকল্পনা’ শীর্ষক এক সেমিনারের আয়োজন করা হয়েছে বলে জানান তিনি। ওই সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, বিশেষ অতিথি হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী, বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মূখ্যসমন্বয়ক (এসডিজি) মোঃ আবুল কালাম আজাদ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সচিব নাজিমউদ্দিন চৌধুরী, বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব ড. আহমদ কায়কাউস, কনজ্যুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) সভাপতি গোলাম রহমান ও এফবিসিসিআই এর সভাপতি মোঃ সফিউল ইসলাম (মহিউদ্দিন) উপস্থিত থাকবেন। এছাড়া আলোচক হিসেবে আরো পাঁচজন সেমিনারে বক্তব্য রাখবেন। সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য রাখবেন বিইআরসি’র চেয়ার‌ম্যান মনোয়ার ইসলাম, মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন বিইআরসি’র সদস্য (বিদ্যুৎ) মোঃ মিজানুর রহমান এবং ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে বক্তব্য রাখবেন বিইআরসি’র সদস্য (গ্যাস) মোঃ আবদুল আজিজ খান। আর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ১২ মার্চ টেলিভিশনে টক শো অনুষ্ঠানেরও আয়োজন করা হয়েছে।
ক্যাটাগরি: অন্যান্য
হাইড্রোকার্বন ইউনিট এর অফিস এখন সেগুনবাগিচায়
ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৮ মঙ্গলবার ০৭:০২ এএম - নিউজ ডেস্ক, এনার্জিনিউজবিডি ডটকম
জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ বিভাগের কারিগরি সহায়তা বিষয়ক সংস্থা হাইড্রোকার্বন ইউনিট এর অফিস সম্প্রতি ঢাকার কারওয়ানবাজার থেকে স্থানান্তর করে সেগুনবাগিচায় নেওয়া হয়েছে। অফিস স্থানান্তর প্রসঙ্গে হাইড্রোকার্বন ইউনিট এর মহাপরিচালক ও সরকারের যুগ্ম-সচিব মো. হারুন-অর-রশিদ খান বলেন, হাইড্রোকার্বন ইউনিট এর প্রধানত দায়িত্ব হলো জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ বিভাগকে কারিগরি সহায়তা দেওয়া। সেগুনবাগিচায় অফিস স্থানান্তর করায় যাতাযাতের দূরত্ব কমে গেছে। সংস্থাটিকে আরো যুগোপযোগী করে গড়ে তোলার জন্য বৃহৎ আয়তনের অফিসও দরকার ছিলো। ধীরে ধীরে জনবলও বাড়ছে। সব বিষয় বিবেচনা করেই ১৫৩, পাইওনিয়াররোড, সেগুনবাগিচায় অফিস স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তিনি আরো বলেন, হাইড্রোকার্বন ইউনিট জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগকে তেল, গ্যাস ও খনিজ সম্পদ বিষয়ে কারিগরি সহায়তা ও পরামর্শ প্রদান করে থাকে। এই ইউনিট বিভাগের চাহিদানুযায়ী জাতীয় জ্বালানি নীতি হালনাগাদ ও যুগোপযোগীকরণ, খসড়া কয়লানীতি চূড়ান্তকরণ, গ্যাস চাহিদা, গ্যাস ক্ষেত্র উন্নয়ন, গ্যাস সেক্টরের ভবিষ্যত পরিকল্পনাসহ অন্যান্য নীতিমালা প্রণয়নে সক্রিয় অংশগ্রহণ ও মতামত প্রদান করে আসছে।
ক্যাটাগরি: অন্যান্য
    সাম্প্রতিক অন্যান্য এর খবর
‘আগামী ১৩ মার্চ এনার্জি রেগুলেটরী কমিশন প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করবে’
হাইড্রোকার্বন ইউনিট এর অফিস এখন সেগুনবাগিচায়
বাংলাদেশ ইনফ্রাস্ট্রাকচার ইনোভেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট এক্সপো শুরু হচ্ছে মার্চ ১
পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান পদে আরো তিন বছর চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ পেল মঈনউদ্দিন
চীনের বৃহত্তম বিদ্যুৎ কোম্পানি এনইপিসি ঢাকায় অফিস খুলেছে
‘বিপিডিবি’র চেয়ারম্যান হিসেবে প্রকৌশলী খালেদ মাহমুদকে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ’
বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের সেক্টর লিডারস কর্মশালা শুরু
সামিট পাওয়ার লিমিটেডের নতুন উপদেষ্টা হলেন মোস্তফা কামাল
‘জ্বালানির মূল্য নির্ধারণে দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জন্য সরকারের ভুর্তকি দেওয়ার পরামর্শ’
তিতাস গ্যাস এবং গ্যাস ট্রান্সমিশন কোম্পানীর ব্যবস্থাপনা পরিচালক পদের মৌখিক পরীক্ষা সোমবার
ডিপিডিসি’র নতুন ব্যবস্থাপনা পরিচালক হলেন প্রকৌশলী বিকাশ দেওয়ান
ঝিনাইদহে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ৩ জনের মৃত্যু
‘প্রথমবারের মতো ভিডিও কনফারেন্সিং এ বিদ্যুৎ বিভাগের সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত’
এনার্জি অ্যান্ড পাওয়ার রিসার্চ কাউন্সিলের নতুন চেয়ারম্যান সাহিন আহমেদ চৌধুরী
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের নতুন সচিব হলেন আনোয়ার হোসেন
বিশ্ব জ্বালানি ব্যবস্থাপনায় দুই ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ
বাংলাদেশে জ্বালানির প্রাপ্যতা নিয়ে বেইজলাইন সার্ভে করবে মাইডাস
‘১ আইডিয়াতে বাজিমাত’ প্রতিযোগিতায় প্রথম পুরস্কার পেল ফজলে ইলাহী
‘বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে দ্বিতীয় জ্বালানি সংলাপ অনুষ্ঠিত’
উইন্ড পাওয়ার সেক্টরে প্রবেশ করছে রোসাটম
এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনে নতুন চেয়ারম্যানসহ তিনজন সদস্য নিয়োগ দিয়েছে সরকার
পরমাণু শক্তি কমিশনের নতুন চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মঞ্জুরুল হক
বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী ফেসবুক লাইভে আসছেন বৃহস্পতিবার, যোগ দিন আপনিও
বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানীর নতুন ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাবিব উদ্দিন
রামপালে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের দাবিতে মানববন্ধন
বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের বিরোধ নিষ্পত্তি করবে বিইআরসি ট্রাইব্যুনাল
‘আগামীতে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে নিজস্ব অর্থায়নে উন্নয়ন প্রকল্প নেয়ার উদ্যোগ’
স্রেডার নতুন চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দিন
ব্লু ইকোনমি সেলের যাত্রা শুরু
    FOLLOW US ON FACEBOOK


Explore the energynewsbd.com
হোম
এনার্জি ওয়ার্ল্ড
মতামত
পরিবেশ
অন্যান্য
এনার্জি বিডি
গ্রীণ এনার্জি
সাক্ষাৎকার
বিজনেস
আর্কাইভ
About Us Contact Us Terms & Conditions Privacy Policy Advertisement Policy

   Editor & Publisher: Aminur Rahman
   Copyright @ 2015-2018 energynewsbd.com
   All Rights Reserved | Developed By: Jadukor IT